১৬ জুন শুরু হবে ই’তিকাফ

১৬ জুন শুরু হবে ই’তিকাফ

SHARE
Etikaff in ramadan

রাসূল (সঃ) কর্তৃক পালিত ইবাদতগুলোর মধ্যে ই’তিকাফ অন্যতম। আল্লাহ তাআলার নৈকট্য অর্জনে নিরবচ্ছিন্ন ইবাদাত বন্দেগিতে সময় কাটানো ও লাইলাতুল ক্বদর প্রাপ্তিতে একমাত্র সুবর্ণ সুযোগও আসে ই’তিকাফ পানের মাধ্যমে। আগামী ২০ রমজান সন্ধ্যায় ই’তিকাফকারীরা মসজিদে অবস্থান নেবে। অর্থাৎ ১৬ জুন শুরু হবে ই’তিকাফ

রমজানে আল্লাহর রহমত বরকত মাগফেরাত ও নাজাত লাভ তথা চূড়ান্ত নৈকট্য অর্জনের মাধ্যম হলো ই’তিকাফ। রমজান ছাড়াও বছরের অন্যান্য দিনগুলোতে ই’তিকাফ করা সুন্নাত।

ই’তিকাফ হচ্ছে নিজের নফসকে আল্লাহ তাআলার ইবাদতে আবদ্ধ করা ও তাঁর সঙ্গে বন্ধুত্ব করা। আর দুনিয়ার সব কিছু থেকে নিজেকে বিচ্ছিন্ন করে আল্লাহর জিকির-আজকারের মাধ্যমে নিজের অন্তরকে দুনিয়াবী কাজ-কর্ম থেকে বিরত রাখা জরুরি।

ই’তিকাফ যেহেতু রমজানের শেষ দশদিনে আদায় করতে হয়। তাই ই’তিকাফে অংশগ্রহণকারীগণকে এখন থেকেই প্রস্তুতি নেয়া আবশ্যক। কেননা ই’তিকাফে বসার পর দুনিয়াবি কোনো প্রকার কথা-বার্তা, লেন-দেন, ব্যবসা-বানিজ্য, চাকরি-বাকরি কোনো কিছুতেই অংশগ্রহণ সম্ভব নয়।

ই’তিকাফে বসার আগে যা করা আবশ্যক

>> পরিবারের ঈদের প্রস্তুতি সম্পন্ন করা।

>> ফিতরা আদায়ের ব্যবস্থা করা।

>> পরিবারের ব্যয়ভার বহনের ব্যবস্থা করা।

>> মসজিদে ইফতার ও সাহরি পৌছানোর ব্যবস্থা করা।

>> দুনিয়াবি জরুরি সম্ভাব্য কাজের সমাধানের ব্যবস্থা করা।

ই’তিকাফে বসার জন্য মসজিদে প্রবেশের আগেই প্রয়োজনীয় পারিবারিক সব সমস্যার সমাধানে সার্বিক ইন্তেজাম সম্পন্ন করা মুমিন মুসলমান রোজাদারের জন্য অত্যন্ত জরুরি।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে ই’তিকাফের জন্য যথাযথ প্রস্তুতি সম্পন্ন করার তাওফিক দান করুন। আমিন।