হিমোগ্লোবিনের মাত্রা বাড়ায় কাঁঠালের বিচি

হিমোগ্লোবিনের মাত্রা বাড়ায় কাঁঠালের বিচি

SHARE
Jackfruit seed increases hemoglobin levels

বাজারে এখন কাঁঠালের মেলা। কাঁঠালের পুষ্টিগুণের কথা অনেকেরই জানা। এতে ভিটামিন বি, পটাশিয়ামের মতো নানা ধরনের পুষ্টি উপাদান রয়েছে। কাঁঠালের মতো এর বীজেরও রয়েছে নানা গুণ। গবেষণা বলছে,কাঁঠালের বীজ বা বিচি খেলে শরীরের অনেক উপকার হয়। এতে থাকা থিয়ামিন,রাইবোফ্লেবিন নামের উপাদান দেহে শক্তির ঘাটতি দূর করার ক্ষেত্রে বিশেষ ভূমিকা পালন করে। চোখ, ত্বক এবং চুলও সজীব রাখে। এছাড়া এতে অল্প পরিমাণে খনিজ যেমন-জিঙ্ক, আয়রণ, ক্যালসিয়াম, কপার, পটাশিয়াম এবং ম্যাগনেশিয়াম রয়েছে।

কাঁঠালের বীচিতে প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন এ থাকে। ভিটামিন এ চোখের স্বাস্থ্যের জন্য অত্যন্ত প্রয়োজনীয় পুষ্টি উপাদান। এটি রাতকানা কাটাতেও সাহায্য করে। ভিটামিন এ শুধু চোখ নয়, চুলের স্বাস্থ্যও ভালো রাখতে ভূমিকা রাখে। চুলের আগা ফেটে যাওয়া প্রতিরোধ করে ভিটামিন এ।

মুখের বলিরেখা দূর করার জন্য কাঁঠালের বিচি বেশ কার্যকরী। এর জন্য কাঁঠালের বিচি বেটে ঠান্ডা দুধের সঙ্গে মিশিয়ে মুখে লাগাতে পারেন। এতে মুখের বলিরেখা অনেকটাই দূর হবে। ত্বকের তারুণ্য বাড়বে। দুধ, কাঁঠালের বীজের পেস্টের সঙ্গে মধু মিশিয়ে লাগালেও ত্বকের লাবণ্যতা বাড়বে।

উচ্চ মানের প্রোটিন এবং আরো অনেক পুষ্টি থাকায় কাঁঠালের বীজ মানসিক চাপ কমাতে সাহায্য করে। সেই সঙ্গে নানা ধরনের ত্বকের সমস্যা কমায়। কাঁঠালের বিচির তৈরি পেস্ট ত্বকের আর্দ্রতা বজায় রাখে এবং চুলের স্বাস্থ্য ঠিক রাখে।

কাঁঠালের বীজে থাকা আয়রন শরীরে হিমোগ্লোবিনের মাত্রা বাড়াতে সাহায্য করে। এতে অ্যানিমিয়ার আশঙ্কা কমে। এছাড়া আয়রন মস্তিষ্ক এবং হৃদপিন্ড সুস্থ, সবল রাখতে সহায়ক ভূমিকা পালন করে।

ভিটামিন এ’র ভালো উৎস হওয়ায় কাঁঠালের বীজ চোখ ভালো রাখতে সাহায্য করে। সেই সঙ্গে চুলের স্বাস্থ্যও ঠিক রাখে।

কাঁঠালের বিচিতে থাকা ফাইবার কোষ্ঠ্যকাঠিন্যের সমস্যা কমায়। সেই সঙ্গে কোলোনের কর্মক্ষমতাও বৃদ্ধি পায়।

কাঁঠালের বীজে থাকা প্রোটিন মাংসপেশীর গঠনে সাহায্য করে।