স্যামসাং প্রধান লি জে ইয়ংকে ৫ বছরের জেল

স্যামসাং প্রধান লি জে ইয়ংকে ৫ বছরের জেল

SHARE
Samsung chief Lee J Young is sentenced to 5 years

দক্ষিণ কোরীয় স্মার্টফোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠান স্যামসাং প্রধান লি জে ইয়ংকে দুর্নীতির দায়ে ৫ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন দেশটির আদালত। শুক্রবার তার বিরুদ্ধে এ রায় দেন আদালত।

লি জে ইয়ং (৪৯) বিশ্বের বৃহত্তম স্মার্টফোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠান স্যামসাংয়ের ভাইস চেয়ারম্যান। তার বিরুদ্ধে বেশ কয়েকটি দুর্নীতির অভিযোগ আনা হয়। যা গত ফেব্রুয়ারিতে আনুষ্ঠানিকভাবে অভিযোগ গঠন করা হয়। শুনানি শেষে আজ (শুক্রবার) এ রায় ঘোষণা করা হয়।

এক দশক আগে লির বাবা কুন হি ঘুষ ও ট্যাক্স ফাঁকির দায়ে কারাদণ্ডে দণ্ডিত হয়েছিলেন। একইভাবে দণ্ডিত হয়েছিলেন লির দাদা স্যামসাংয়ের প্রতিষ্ঠাতা সিনিয়র লি। এদিকে দেশটিতে কোনো বড় ব্যবসায়ীকে দেওয়া সর্বোচ্চ শাস্তির মধ্যে এটি একটি। তার এই কারাদণ্ডের রায় প্রতিষ্ঠানটির জন্য বড় একটি ধাক্কা। খবর এএফপি ও রয়টার্সের।

সিউলের সেন্ট্রাল ডিস্ট্রিক কোর্ট শুক্রবার এক রায়ে বলেছে, স্যামসাং ইলেকট্রনিক্সের ভাইস প্রেসিডেন্ট লি জে ইয়ং সুবিধা পাওয়ার জন্য দক্ষিণ কোরিয়ার সাবেক প্রেসিডেন্ট পার্ক জিউন হাইকে ঘুষ দিয়েছিলেন।

ছয় মাস ধরে মামলার বিচার চলার পর এই রায় দেওয়া হয়েছে। লির বিরুদ্ধে অভিযোগ, তিনি সরকারি সুবিধা পাওয়ার জন্য তখনকার প্রেসিডেন্ট হাইয়ের ঘনিষ্ঠ বান্ধবী চোই সুন সিল পরিচালিত কয়েকটি ফাউন্ডেশনে ৩ কোটি ৬৩ লাখ ডলার অনুদান দিয়েছেন।

ওই অভিযোগে গত জানুয়ারিতে কয়েক দফা জিজ্ঞাসাবাদের পর ফেব্রুয়ারিতে লির বিচার শুরু করে আদালত। তখনই তাকে গ্রেফতারের পর থেকে কারাগারে আছেন লি। গত মার্চ মাসে দুর্নীতির দায়ে অভিশংসনের পর দক্ষিণ কোরিয়ার প্রথম নারী প্রেসিডেন্ট পার্ক জিউনকে অপসারণ করা হয়।

লি বরাবরই ঘুষ দেওয়ার অভিযোগ অস্বীকার করে আসছেন। এই রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করা হবে বলে জানিয়েছেন লির এক আইনজীবী। তিনি বলেন, এই রায় অগ্রহণযোগ্য এবং আমার বিশ্বাস, উচ্চ আদালতে আমার মক্কেল নির্দোষ প্রমাণিত হবেন।

স্যামসাংয়ের কর্ণধার লি কুন হি ২০১৪ সালে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে কার্যত অবসরে যাওয়ার পর থেকে তার ছেলে লি জে ইয়ং বিশ্বের অন্যতম শীর্ষ কোম্পানিটির দেখভাল করে আসছিলেন। লির চেয়ারম্যান হওয়ার পথ প্রশস্ত করতে পুনর্গঠনের মধ্য দিয়ে যাচ্ছিল স্যামসাং গ্রুপ। তবে তাতে বড় ধাক্কা দিল আদালতের রায়।

১৯৩৮ সালে স্যামসাং গ্রুপ প্রতিষ্ঠা করেন লির দাদা লি বাইয়ুং চুল। ১৯৬৬ সালে তাকে সার কারখানার মাধ্যমে চোরাচালানি করার অপরাধে দোষী সাব্যস্ত করা হয়। তবে সে সময় তিনি গোটা কারখানাকে সরকারের হাতে তুলে দিয়ে জেল খাটা থেকে রেহাই পেয়েছিলেন। লির বাবা কুন হি ১৯৯৬ সালে ঘুষ প্রদান, কর ফাঁকির দায়ে অভিযুক্ত হন। পরে অবশ্য সরকারের বিশেষ বিবেচনায় তার জেলদণ্ড স্থগিত করা হয়। তবে এবার জেলের ঘানি টানা এড়াতে পারছেন না তাদের উত্তরসূরি লি ইয়ং।

LEAVE A REPLY