সেরা রাঁধুনী বাছাইয়ের বিচারক হয়ে আসছেন পূর্ণিমা

সেরা রাঁধুনী বাছাইয়ের বিচারক হয়ে আসছেন পূর্ণিমা

SHARE
Purnima is in sera radhuni

দেশ-বিদেশের ভিন্ন ভিন্ন রান্নায় পারদর্শিতা দেখিয়ে সবার মন জয় করতে সারাদেশ থেকে অসাধারণকে খুঁজে বের করতে স্কয়ার ফুড অ্যান্ড বেভারেজ লিমিটেডের সুপরিচিত ব্র্যান্ড রাঁধুনী’র নিয়মিত উদ্যোগ ‘সেরা রাঁধুনী’। খুব শীঘ্রই মাছরাঙা টেলিভিশনে শুরু হতে যাচ্ছে আয়োজনটির পঞ্চম আসর। আর এবারে সেরা রাঁধুনী বাছাইয়ের বিচারক হয়ে আসছেন পূর্ণিমা

গতকাল ১৫ অক্টোবর ঢাকার প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলের হলরুম ‘সুরমা’য় এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এবারের সেরা রাঁধুনী’র আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ঘোষণা করা হলো। সেখানেই জানানো হলো এই তথ্য। এ সময় উপস্থিত ছিলেন স্কয়ার ফুড অ্যান্ড বেভারেজ লিমিটেডের প্রধান পরিচালন কর্মকর্তা জাকির ইবনে হাই, জেষ্ঠ্য ব্যবস্থাপক, বিপণন, ইমতিয়াজ ফিরোজ, মাছরাঙা টেলিভিশনের ডিজিএম, অ্যাকাউন্টস অ্যান্ড ফাইন্যান্স, এস. এম. ছারোয়ার হোসেন, মিডিয়াকম লিমিটেডের প্রধান পরিচালন কর্মকর্তা অজয় কুমার কুন্ডু, প্রতিযোগিতার দুই বিজ্ঞ বিচারক এক্সিকিউটিভ শেফ শুভব্রত মৈত্র ও রন্ধন বিশেষজ্ঞ নাহিদ ওসমান-সহ স্কয়ার ফুড অ্যান্ড বেভারেজ লিমিটেড, মিডিয়াকম লিমিটেড এবং মাছরাঙা টেলিভিশনের ঊর্ধতন কর্মকর্তাবৃন্দ।

মূল বক্তব্য রাখেন জনাব জাকির ইবনে হাই। অন্যান্য বক্তাদের বক্তব্যে জানা যায়, এবারের সেরা রাঁধুনী প্রতিযোগিতা আমন্ত্রণ জানাচ্ছে সেইসব প্রতিযোগীকেই, রান্নায় বিভিন্ন ক্ষেত্রে পারদর্শিতায় যারা অন্যদের চেয়ে একটু এগিয়ে। অনেকেই রান্নাকে খুব সাধারণ কাজ বলেই মনে করেন। এই কাজে বিশেষ পারদর্শীকেও ‘সাধারণ’ বলেই গণ্য করা হয়। অথচ অনেকেই, এমনকি রান্নায় যিনি দক্ষ তিনিও জানেন না কাজটা কতোটা ‘অসাধারণ’।

এবাবের সেরা রাঁধুনী ১৪২৪-এর ভিন্নধর্মী প্রতিযোগিতামূলক প্লাটফর্ম আবিস্কার করতে চায় সাধারণ মানুষের মাঝে লুকিয়ে থাকা অসাধারণত্বকে। প্রতিযোগিতার রেজিস্ট্রেশন ১৫ অক্টোবর শুরু হয়ে ১৪ নভেম্বর ২০১৭ পর্যন্ত চলবে। রান্নায় নিজের অসাধারণত্ব প্রমাণ করতে ১৮ বছরের বেশি বয়সী যেকোনো বাংলাদেশি নারী-পুরুষ এতে অংশ নিতে পারবেন।

গতবারের মতো এবারও প্রতিযোগিতার মাধ্যমে এমন একজন রন্ধনশিল্পী খুঁজে বের করার চেষ্টা করা হবে যিনি শুধু সুস্বাদু রান্না পরিবেশনাতেই দক্ষ হবেন না বরং একইসাথে বুদ্ধিদীপ্তভাবে উপস্থাপনের মাধ্যমে তার রেসিপি’র বিপণনেও পারদর্শী হবেন। ‘সেরা রাঁধুনী’ বাছাইয়ের জন্য পুরো বাংলাদেশকে ৭টি আলাদা অঞ্চলে ভাগ করে অডিশনের মাধ্যমে ৪০ জনকে বেছে নেয়া হবে। মূল বিচারকের দায়িত্ব পালন করবেন অভিজ্ঞ শেফ শুভব্রত মৈত্র, রন্ধন বিশেষজ্ঞ নাহিদ ওসমান এবং অভিনেত্রী দিলারা হানিফ পূর্ণিমা।

গতবারের মতো এবারেও উপস্থাপনার দায়িত্বে থাকবেন রুমানা মালিক মুনমুন। প্রতিযোগীদের ভিন্ন ভিন্ন ঘরানার রান্নায় পারদর্শিতা যাচাইয়ের পাশাপাশি রান্না পরিবেশনা, নিজেকে উপস্থাপন, ব্যক্তিত্ব, বিক্রয় দক্ষতা, নেতৃত্বগুণ, খাবারের ব্যবসা চালানোর ক্ষমতা, বিভিন্ন পরিস্থিতি সামলানোর ক্ষেত্রে তাৎক্ষণিক বুদ্ধি ও দক্ষতা প্রয়োগের ক্ষমতার উপর ভিত্তি করে বিচারকরা ‘সেরা রাঁধুনী ১৪২৪’ নির্বাচন করবেন।

প্রাথমিকভাবে বিভাগীয় অডিশনের মাধ্যমে সারাদেশ থেকে নির্বাচিত ৪০ জন রন্ধনশিল্পীকে ঢাকায় আমন্ত্রণ জানানো হবে। এরপর আরেকটি প্রতিযোগিতার পর তাদের মধ্য থেকে সেরা ১৬ জনকে নিয়ে শুরু হবে গ্রুমিং রাউন্ড। তারাই প্রতিদ্বন্দ্বীতা করবেন মূল স্টুডিও রাউন্ডে।

এরপর প্রতিযোগিতার নানা ধাপ পেরিয়ে নির্বাচিত হবেন সেরা রাঁধুনী ১৪২৪। পুরস্কার হিসেবে তিনি জিতে নেবেন পনেরো লক্ষ টাকা। প্রথম ও দ্বিতীয় রানারআপ পাবেন যথাক্রমে দশ লক্ষ এবং পাঁচ লক্ষ টাকা।

আগ্রহী প্রতিযোগীরা নিজস্ব রান্নার রেসিপি, তিনটি ভিন্ন থ্রি আর (৩ আর) সাইজ ছবি এবং নির্দিষ্ট কিছু প্রশ্নের উত্তর পাঠিয়ে ‘সেরা রাঁধুনী ১৪২৪’ প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে পারবেন। রেসিপি, ছবি ও উত্তর পাঠানোর ঠিকানা: সেরা রাঁধুনী ১৪২৪, স্কয়ার সেন্টার, ৪৮ মহাখালী বা/এ, ঢাকা ১২১২। ই-মেইলও করা যাবে sheraradhuni1424@gmail.com -এই ঠিকানায়।

এছাড়া গুগোল প্লে-স্টোর থেকে ‘রাঁধুনী’ অ্যাপ নামিয়েও যে কেউ খুব সহজেই রেজিস্ট্রেশন করতে পারবেন। নির্দিষ্ট প্রশ্ন এবং অন্যান্য তথ্য ‘রাঁধুনী অ্যাপ’ সহ দৈনিক পত্রিকা, সেরা রাঁধুনী’র ওয়েবসাইট (www.sheraradhuni.com), ফেসবুক পেইজ (www.facebook.com/radhuni.spices)-এ পাওয়া যাবে। আরো তথ্যের প্রয়োজনে রয়েছে একটি বিশেষ হটলাইন নম্বর ০৯৬১২১১১৩৩৩ (প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ১০টা)।

সেরা রাঁধুনী ১৪২৪-এর পুরো আয়োজনটির সার্বিক ব্যবস্থাপনা ও তত্ত্বাবধানে থাকছে মিডিয়াকম লিমিটেড এবং সম্প্রচারের দায়িত্বে রয়েছে মাছরাঙা টেলিভিশন। আয়োজনের সহযোগী প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে রয়েছে রেডিও ফূর্তি, দৈনিক সমকাল এবং রাঙামাটি ওয়াটারফ্রন্ট রিসোর্ট।