শীতে ঘরকে রাখুন উষ্ণ

শীতে ঘরকে রাখুন উষ্ণ

SHARE
For keeping home warm

শীতে অনেকে নিজেকে লেপের নিচে কিংবা গরম কাপড়ে গুটিয়ে রাখতেই বেশি ভালবাসেন। আর সাথে গরম চায়ের কাপ কিংবা কফি। দিনের শুরু হোক কিংবা শেষ, চারিদিকে নানা রকমের আর ঢঙের গরম কাপড় চোখে পড়ে সবার। শহর ছেড়ে আবার গ্রামের দিকে গেলে চোখে পরে আবার ভিন্ন দৃশ্য। কিছু দূরে দূরে কিংবা বাড়ির উঠানে দেখা মিলে গোলাকার বৃত্ত করে বসা কিছু মানুষ। যারা কিনা আগুন পোহাচ্ছে। আর সাথে গরম গরম ভাপা কিংবা চিতই পিঠা। শীতে সবারই চাই উষ্ণতার ছোঁয়া।

সারা দিনের কাজ সেরে ফিরতে হয় ঘরে। আর সেই ঘরেই যদি না থাকে উষ্ণতার ছোঁয়া তাহলে কীভাবে হয়। আর তাই এই শীতে আপনার ঘরকে রাখুন উষ্ণ। কিভাবে? আসুন তবে জেনে নেওয়া যাক-

প্রাকৃতিকভাবে

শীতের সকালে যখন সূর্যের আলো চারিদিকে অল্প অল্প করে উষ্ণতা ছড়িয়ে দেয় তখন পর্যাপ্ত পরিমাণে রোদের আলো ঘরে ঢোকার ব্যবস্থা রাখুন। ঘরে ভারী পর্দা ব্যবহার করুন। যাতে বাইরের ঠান্ডা ঘরে প্রবেশ করতে না পারে। অনেকসময় দরজা কিংবা জানালায় ফাঁকা জায়গা থাকে। এই ফাঁকা জায়গাগুলো কাপড় দিয়ে ঢেকে কিংবা বন্ধ করে রাখুন। যাতে বাতাস প্রবেশ করতে না পারে।

রুম হিটার

সারাক্ষণ রান্নাঘরে কিংবা চা, কফি খেয়ে নিজেকে গরম রাখলেও কখনো কখনো রুমের তাপমাত্রার সাথে মানিয়ে নেওয়া সম্ভব হয় না। অনেকসময় দেখা যায় রুমের তাপমাত্রা এতটাই ঠান্ডা থাকে যে শীতের প্রকোপকে আরো কয়েকগুণ বাড়িয়ে দেয়। আর তাই রুমে রাখতে পারেন রুম হিটার। দুধরনের রুম হিটার হতে পারে। একটি থেকে শুধু গরম হাওয়া বের হয়। আরেকটি আপনার ঘরকে ঠান্ডা থেকে ধীরে ধীরে গরম করে তুলবে। এটি হালকা হওয়ায় বহন উপযোগী। এক রুম থেকে অন্য রুমে খুব সহজেই নেওয়া যায়।

বেড হিটার

শীতের এই সময়ে আরেকটি কষ্টসাধ্য কাজ হচ্ছে ঠান্ডা বিছানায় ঘুমানো। অনেকসময় দেখা যায় সারাক্ষণ নিজেকে চাদরে কিংবা গরম পোশাকে উষ্ণ রেখেও এই ঠান্ডার হাত থেকে বাঁচা যাচ্ছে না। তাই বিছানাকে গরম রাখতে শীতের এই সময় ব্যবহার করতে পারেন বেড হিটার।

প্রপ্তিস্থান

শীতে ব্যবহার্য এসব যন্ত্রপাতি পাওয়া যাবে ঢাকা শহরের বসুন্ধরা সিটি শপিং মল (লেভেল-১), মিরপুর ১০, এলিফ্যান্ট রোডের স্যানিটারি কিংবা টাইলসের শোরুমগুলোতে, মৌচাক মার্কেট, নিউমার্কেট, বিভিন্ন ইলেকট্রনিকসের ব্র্যান্ডের শোরুমগুলোতে।