শিক্ষকদের পেনসনের বর্ধিত চাঁদা কর্তন জুলাই থেকেই

শিক্ষকদের পেনসনের বর্ধিত চাঁদা কর্তন জুলাই থেকেই

SHARE
Board_of_Education_

চলতি জুলাই থেকে বেসরকারি শিক্ষকদের অবসর ও কল্যাণ বাবদ ১০ শতাংশ চাঁদা কর্তনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। বুধবার মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতর থেকে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে।

এছাড়া জানা গেছে, বেসরকারি শিক্ষক-কর্মচারীদের এককালীন অবসর ও কল্যাণ ভাতার জন্য তাদের বেতন থেকে বর্ধিত হারে চাঁদা কর্তন কোন মাস থেকে শুরু হবে তা জানতে চেয়ে গত সপ্তাহে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে চিঠি পাঠিয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতর। এ ব্যাপারে মাদরাসা ও কারিগরি অধিদফতরেও পৃথক চিঠি দেয়া হয়।

গত জুনে শিক্ষাসচিব মো. সোহরাব হোসাইন স্বাক্ষরিত দুটি আলাদা গেজেটে অবসর ও কল্যাণ ভাতার জন্য বর্ধিত হারসহ মাসিক বেতন থেকে মোট ১০ শতাংশ চাঁদা হিসেবে কর্তনের কথা বলা হয়েছে। এর আগে অবসর ও কল্যাণ খাতে যথাক্রমে ৪ ও ২ শতাংশ মিলে মোট ৬ শতাংশ টাকা কর্তন করা হতো। তবে এবারে বর্ধিত চাঁদার গেজেটে তা ১০ শতাংশ করা হয়েছে।

এ বিষয়ে অবসর সুবিধা বোর্ডের সদস্য-সচিব অধ্যক্ষ শরীফ আহমদ বলেন, জুলাই থেকে চাঁদা কর্তন করতে শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। বিষয়টি সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে জানিয়ে দিয়েছি। সময়মত শিক্ষকদের পেনশন সুবিধা তুলে দিতেই চাঁদার হার বৃদ্ধি করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

এছাড়া মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের মহাপরিচালক বলেন “শিক্ষাসচিব স্যার আমাকে বলেছেন, জুন মাসটা ভাঙ্গা মাস। যদিও গেজেট হয়েছে। তবু, জুলাই মাস থেকেই কার্যকর হবে গেজেট। জুলাই মাস থেকেই ১০ শতাংশ হারে চাঁদা কর্তন করা হবে,”

অবসর সুবিধা বোর্ডের সদস্য-সচিব অধ্যক্ষ শরীফ আহমদ সাদী বলেন, “জুলাই মাস থেকে চাঁদা কর্তন কার্যকর করতে শিক্ষাসচিব মহোদয়ের নির্দেশ রয়েছে।”

পদাধিকার বলে, অবসর বোর্ড ও কল্যাণ ট্রাস্টের প্রধান শিক্ষাসচিব।

অধিদপ্তরের পরিচালক (কলেজ ও প্রশাসন) মোহাম্মদ শামছুল হুদা বলেন, “শিক্ষা অধিদপ্তর দুই ভাবেই প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছিল। যদি আদশে হতো জুন মাস থেকে তবে যেদিন চেক ছাড় হতো  সেদিনই ১০ শতাংশ হারে চাঁদার টাকা কর্তন করে রাখা হতো। আর যেহেতু বলা হয়েছে জুলাই মাস থেকে কার্যকর তবে তো আরও সময় পাওয়া গেলো।”

বাজেটের ব্যয় বিভাজনের কারণে জুন মাসের বেতনের চেক ছাড়করণে দেরি হচ্ছে বলে জানান শামছুল হুদা।

 

LEAVE A REPLY