রাতে ত্বকের যত্নে ফেস মাস্ক

রাতে ত্বকের যত্নে ফেস মাস্ক

SHARE
Night facemarks

ব্যস্ত জীবনে ত্বকের যত্ন নেওয়ার সময় পাচ্ছেন না। তাহলে রাতে ঘুমানোর আগে একটু সময় বের করে নিন। আর সহজ কিছু ‘মাস্ক’ ব্যবহার করে ত্বক করুন উজ্জ্বল। রাতে ঘুমানোর সময় ত্বক সারাদিনের ক্ষতি পুষিয়ে নেয়। তাই এসময়ে যদি বাড়তি যত্ন নেওয়া যায় তবে সকালে মিলবে দীপ্তিময় ত্বক। আসুন জেনে নিই রাতে ত্বকের যত্নে ফেস মাস্ক এর ব্যবহার সম্পর্কে-

অ্যালোভেরা জেল:

মিশ্র ও তৈলাক্ত ত্বকের জন্য এই জেল বেশি উপযোগী। অ্যালোভেরার কাঁচাপাতা থেকে জেল বের করে ত্বকে লাগিয়ে নেওয়া যেতে পারে। তবে যাদের অ্যালার্জির সমস্যা আছে তারা পরিশোধিত জেল বেছে নিতে পারেন।

কয়েক ফোঁটা গোলাপ জলের সঙ্গে মিশিয়ে ঘুমানোর আগে ত্বকে এই জেল লাগিয়ে নিন। অ্যালোভেরা রোদপোড়া ত্বক সুস্থ করতে সাহায্য করে। এছাড়া আর্দ্রতা যুগিয়ে ব্রণের দাগ দূর করে ত্বক উজ্জ্বল করে।

গ্রিন টি ও আলুর রস:

এক বা দুইটি গ্রিন টি-ব্যাগ ফুটিয়ে নিন ১০ মিনিট। পানি ঠাণ্ডা হয়ে গেলে এর সঙ্গে এক টেবিল-চামচ গ্রিন টি ও সমপরিমাণ আলুর রস মিশিয়ে ঘুমানোর আগে মুখে ও গলায় লাগয়ে নিন। এই মিশ্রণ ত্বকের রংয়ের অসমতা দূর করার পাশাপাশি রোদপোড়াভাব দূর করে লোম কূপ পরিষ্কার করবে।

মধু ও দই:

এক টেবিল-চামচ পরিমাণ মধু ও সমপরিমাণ দই মিশিয়ে ক্রিমের মতো করে ত্বকে লাগিয়ে নিন। শুকিয়ে গেলে ঘুমিয়ে যান। দইয়ের উপকারী অ্যাসিডিক উপাদান ত্বকের মৃত কোষ দূর করবে এবং ব্রণের সমস্যা রোধ করবে। মধু ত্বকে আর্দ্রতা যুগিয়ে দীপ্তি বাড়াবে।

শসার রস ও জলপাই তেল:

দুই টেবিল-চামচ শসার রসের সঙ্গে এক টেবিল-চামচ জলপাইয়ের তেল মিশিয়ে মুখে গলায় ও হাত-পায়ে লাগিয়ে নিন। সকালে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। শসার শীতলকারী উপাদান ত্বকের জ্বলুনি ও অন্যান্য সমস্যা দূর করবে ও পিএইচ’য়ের ভারসাম্য বজায় রাখবে। অন্যদিকে জলপাইয়ের তেল ত্বক কোমল রাখতে সাহায্য করবে।

কাঠবাদামের তেল:

খুবই সাধারণ তবে উপকারী একটি উপাদান হল বাদাম-তেল। শুষ্ক থেকে স্বাভাবিক ত্বকের অধিকারীদের জন্য এই তেল মাস্ক হিসেবে ব্যবহার করা যেতে পারে। ঘুমানোর আগে পরিমাণ মতো বাদাম তেল নিয়ে ত্বকে হাত ঘুরিয়ে মালিশ করুন। এই তেলের ভিটামিন ই ত্বকে পুষ্টি যোগায়, চোখের নিচের কালচেভাব দূর করে ও রোদপোড়া ত্বক সারিয়ে তোলে। এছাড়া ত্বকের তারুণ্য ধরে রাখতেও এই তেল দারুণ উপকারী।