মিরপুরে জঙ্গি আস্তানা থেকে ৭টি মাথার খুলি উদ্ধার

মিরপুরে জঙ্গি আস্তানা থেকে ৭টি মাথার খুলি উদ্ধার

SHARE
7 head skull recovered from a militant place in Mirpur

রাজধানী মিরপুরের মাজার রোডের জঙ্গি আস্তানায় পুড়ে কয়লা হয়ে যাওয়া বিকৃত ৭টি মাথার খুলি ও বিভিন্ন অঙ্গ পাওয়া গোছে বলে জানিয়েছেন র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‍্যাব) মহাপরিচালক (ডিজি) বেনজীর আহমেদ।

বেনজীর আহমেদ গণমাধ্যমকে জানান, ‘পঞ্চম তলার ওই বাড়িতে বুধবার সকাল থেকে র‌্যাব ও ফায়ার সার্ভিস তল্লাশি চালায়। প্রথম তল্লাশিতে তারা তিনজনের মৃতদেহ উদ্ধার করে। পরে একই তলা থেকে আরও চারজনের মরদেহ উদ্ধার হয়। সাতজনই আত্মঘাতী হওয়ায় তাদের মাথার খুলিসহ মরদেহের বিভিন্ন অংশ ছিন্ন-ভিন্ন অবস্থায় পাওয়া গেছে।’

তিনি বলেন, গতকাল মঙ্গলবার রাতে পৌনে ১০টার দিকে বাড়িটির পঞ্চমতলায় ভয়াবহ বিস্ফোরণে রাসায়নিক পদার্থ ব্যবহার করা হয়েছিল। তিনটি বিস্ফোরণের ফলে পঞ্চম তলায় আগুন ধরে যায়। এরপর সেই ফ্লোরের দু-তিন ফুট এলাকা গর্ত হয়ে যায়। সেটা দিয়ে রাসায়নিক পদার্থ চারতলায় পড়ে আগুন ধরে যায়। বিস্ফোরণের কারণে ভবনটির গ্লাস ফেটে চারদিকে ছড়িয়ে পড়ে। সকাল থেকেই ভবনটিতে ফায়ার সার্ভিস, বোমা নিষ্ক্রিয়কারী দল কাজ করেছে। পঞ্চম তলার ওই ফ্ল্যাটে ৫৫ থেকে ৬০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা এখনো আছে। তবে চতুর্থ তলায় পানি দিয়ে শীতল করার চেষ্টা করা হচ্ছে। পঞ্চম তলায় পানি ব্যবহার করা যাচ্ছে না। কারণ এতে আলামত নষ্ট হতে পারে।

রাজধানীর মিরপুরের বর্ধনবাড়ি এলাকার আস্তানায় অবস্থান করা জঙ্গি আবদুল্লাহ র‌্যাবের আহ্বানে আত্মসমর্পণ করতে রাজি হয়েও শেষ পর্যন্ত মত পাল্টে ফেলে। শুধু তাই নয়, অভিযানের ঘেরাটোপে আটকে থাকা অবস্থাতেই মঙ্গলবার রাতে আস্তানার ভেতর থেকে পর পর চার দফায় ভারি বিস্ফোরণও ঘটায়। কেঁপে ওঠে পুরো এলাকা। থেমে থেমে শোনা যায় গুলির শব্দ। বিস্ফোরণে ছয়তলা বাড়িটির পঞ্চমতলায় আগুন ধরে যায়।

জঙ্গি আব্দুল্লাহ ২০০৫ সালে জঙ্গিবাদে (জেএমবি) সম্পৃক্ত হয়। ২০০৮-০৯ সালে জেএমবি ভেঙে তামিম-সারোয়ারের নেতৃত্বে নব্য জেএমবি গঠিত হয়। ওই সময় ‘জঙ্গি’ আব্দুল্লাহ নব্য জেএমবিতে যোগ দেয়।

LEAVE A REPLY