ব্রণের দাগ দূর করবে পুদিনা পাতার রস

ব্রণের দাগ দূর করবে পুদিনা পাতার রস

SHARE
pudina-pata-for-skin care

প্রাচীনকাল থেকেই ঔষধি হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে পুদিনা। তাই খাদ্য হিসেবে পুদিনা আপাত অবহেলিত হলেও ওষুধ হিসেবে অবহেলিত নয় মোটেও! বরং যত দিন যাচ্ছে তত গবেষণা হচ্ছে পুদিনা ও পুদিনার মতো ভেষজ উদ্ভিদ নিয়ে আর ততই মানুষ জানছে এসবের গুণাগুণ সম্পর্কে। আর তাই ব্যবহারের আগ্রহও তৈরি হচ্ছে নানা ভেষজ সম্পর্কে। শুধু খাবার বা ওষুধ হিসেবে নয়, রূপচর্চার উপাদান হিসেবেও পুদিনার রয়েছে যথেষ্ট অবদান। বিশেষ করে ব্রণের দাগ দূর করতে এর তুলনা নেই। মেয়েদের ত্বকের সমস্যাগুলোর মধ্যে অন্যতম হল ব্রণ। এর কারণ ধূলা, বালি, অপরিষ্কার ত্বক, খাদ্যাভাস প্রভৃতি। এছাড়া ত্বকের অ্যালার্জি থেকেও অনেকের ব্রণ হয়ে থাকে। এবারে ব্রণের দাগ দূর করবে পুদিনা পাতার রস-

ব্রণের দাগ দূর করতে প্রতিদিন রাতে পুদিনা পাতার রস আক্রান্ত স্থানে লাগান। সম্ভব হলে সারারাত রাখুন। নতুবা কমপক্ষে ২/৩ ঘণ্টা রাখুন। তারপর ধুয়ে ফেলুন। মাস খানেকের মাঝেই দাগ দূর হবে।

এছাড়া ব্যবহার করতে পারেন পুদিনা পাতা দিয়ে তৈরি ফেসপ্যাক-

প্রয়োজনীয় উপকরণ ও প্রস্তুতপ্রণালী :

তুলসি পাতা তিনটি, নিমপাতা দুটি, পুদিনা পাতা দুটি, একটি লেবুর রস, হলুদের গুঁড়ো এক চা চামচ। তুলসি ও নিমপাতায় অ্যান্টিফাঙ্গাল ও অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল উপাদান রয়েছে, যা ত্বকের কালো ছোপ ছোপ দাগ ও ব্রণের দাগ দূর করে।

এছাড়া রোদে পোড়া দাগও দূর করতে সাহায্য করে। পুদিনা পাতা ত্বককে ঠান্ডা রাখে এবং ত্বকের জ্বালাপোড়া দূর করে।

আর লেবুর রস ত্বকে প্রাকৃতিক ব্লিচের কাজ করে যা ত্বকের সব ধরনের দাগ দূর করতে কার্যকর। অন্যদিকে হলুদের গুঁড়োর অ্যান্টিফাঙ্গাস উপাদান রয়েছে যা ব্রণের জীবাণু ধ্বংস করে এবং ত্বক উজ্জ্বল করে।

ব্যবহারবিধি :

প্রথমে লেবুর রসের সঙ্গে তুলসি পাতা, পুদিনা পাতা ও নিমপাতা দিয়ে ভালো করে ব্লেন্ড করুন। এর সঙ্গে হলুদের গুঁড়ো মেশান। এরপর একটি ব্রাশ দিয়ে এই প্যাক পুরো মুখে লাগিয়ে ১০ থেকে ১৫ মিনিট অপেক্ষা করুন। শুকিয়ে গেলে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। ভালো ফল পেতে সপ্তাহে অন্তত একদিন ত্বকে এই প্যাক ব্যবহার করুন।