বাদ পড়ল শ্রেয়ার গাওয়া গান

বাদ পড়ল শ্রেয়ার গাওয়া গান

SHARE
Sheriya ghosal

‘সুলতান’ ছবিতে নিজের হাতে অরিজিৎ সিংহের গান বাদ দিয়ে দিয়েছিলেন সালমান খান। সেই নিয়ে বিতর্ক কম হয়নি। এবার একইরকম ঘটনার শিকার হলেন শ্রেয়া ঘোষালও।

এই মুহূর্তে বলিউডে বাঙালিদের গর্ব শ্রেয়া ঘোষাল। এক দশকেরও বেশি সময় ধরে বলিউডে বছরে ৯৯ শতাংশ ছবিতেই গান গেয়ে আসছেন শ্রেয়া। একটা সময় শ্রেষ্ঠত্বের লড়াইটা চলত তাঁর এবং সুনীধি চৌহানের মধ্যে।

এই মুহূর্তে বছর ৩০-এর শ্রেয়াকেই  ধরা হয় এক নম্বর মহিলা প্লে-ব্যাক সিঙ্গার হিসাবে।আর এবার সেই শ্রেয়ার গানই বাদ দেওয়ার অভিযোগ উঠল।

বলিউডে নামী শিল্পীদের দিয়ে গান গাইয়েও পরে তা বাদ দেওয়ার একটা রেওয়াজ সামনে এসেছে গত বছর থেকে। তবে এর আগে একটু কম নামী শিল্পীরা এই ধরনের অভিযোগ করলেও কেউ কোনওদিনই তা কানে তোলেননি।

গত বছর  তুমুল হইচই হয় ‘সুলতান’ ছবিতে অরিজিৎ সিংহের গান বাদ দেওয়া নিয়ে। আর ফেসবুকে অরিজিৎ নিজেই বিষয়টি নিয়ে সরব হওয়ায় জল আরও ঘোলা হয়। কারণ, এই গান বাদ দেওয়ার পিছনে ছিলেন সালমান খান।

আর এবার শ্রেয়া ঘোষালের গান বাদ যাওয়ায় দায়ী করা হল শাহরুখ খানকে। সম্প্রতি মুক্তি পাওয়া তাঁর ‘রইস’ ছবিতে বাদ দেওয়া হয়েছে শ্রেয়ার গাওয়া গানটি। অরিজিৎ-এর মতো শ্রেয়া বিষয়টি প্রকাশ্যে আনেননি এবং এই নিয়ে কোথাও কোনও আলোচনাও করেননি। এবার বিষয়টি সোশ্যাল মিডিয়ায় ফাঁস করে দিয়েছেন শ্রেয়ার এক ফ্যান অর্ণব।

টুইটার অ্যাকাউন্টে এই নিয়ে পোস্ট করেছেন অর্ণব। প্রতিবাদ জানিয়েছেন ‘রইস’ ছবি থেকে শ্রেয়ার গান বাদ পড়া নিয়ে। শ্রেয়ার সঙ্গীত জীবনে সর্বপ্রথম বলিউড প্লেব্যাক ছিল সঞ্জয়লিলা বনশালীর ‘দেবদাস’ ছবিতে। শ্রেয়া তখন  টিভিএস সারেগামাপা-র জয়ী গায়িকা। সেইসঙ্গে বাংলায় করেছেন দু’টি অ্যালবামও। সে সময় সঞ্জয়লিলা বনশালীর ‘দেবদাস’-এ একাধিক গানে প্লেব্যাকের জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়েছিলেন তিনি। শ্রেয়ার বয়স তখন ১৬ পার হয়নি। দেবদাসের নায়ক ছিলেন শাহরুখ। ছবিটিতে কবিতা কৃষ্ণমূর্তিদের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে গান গেয়েছিলেন ষোড়শী শ্রেয়া। বলতে গেলে শাহরুখ, মাধুরী, ঐশ্বর্যা অভিনীত ‘দেবদাস’-এর সাফল্যের পিছনে ছিল শ্রেয়ার গাওয়া দুরন্ত সেই গান। কিন্তু, আজ শ্রেয়া যখন খ্যাতির শিখরে তখন সেই শাহরুখ খান নিজের প্রোডাকশনেরই ছবি ‘রইস’ থেকে বাদ দিলেন শ্রেয়ার গান।

সম্প্রতি ভাইরাল হয়েছে শ্রেয়ার ফ্যান অর্ণবের করা টুইটি। আর শেষমুহূর্তে আসরে নেমেছেন খোদ শ্রেয়া। পাল্টা টুইট করে অর্ণবকে সান্ত্বনা দিয়েছেন তিনি। রিটুইট করে শ্রেয়া লিখেছেন মন খারাপ না করতে। একজন শিল্পী যেমন অনেক দরদ দিয়ে গান গায়, তেমনি একজন পরিচালককেও অনেক কিছু খেয়াল রাখতে হয়। ছবির স্বার্থে অনেক সময়ই অনেক কিছু বাদ দিতে হয়। কী রাখা যাবে কি রাখা যাবে না তা পোস্ট প্রোডাকশনের পরেই বলা সম্ভব হয় বলে সেখানে লিখেছেন শ্রেয়া।