ফ্রান্সের সর্বোচ্চ সম্মাননা পাচ্ছেন সৌমিত্র

ফ্রান্সের সর্বোচ্চ সম্মাননা পাচ্ছেন সৌমিত্র

SHARE
Sowmitro chaterjee

১৯৮৭ সালে ফ্রান্সের তৎকালীন প্রেসিডেন্ট ফ্রাঁসোয়া মিতেরঁ কলকাতা শহরে এসে সত্যজিৎ রায়ের হাতে তুলে দিয়েছিলেন এই সম্মাননা। তিরিশ বছর পর আবার ফ্রান্সের সর্বোচ্চ সম্মান লিজিয়ন অফ অনার বা লেজিয়ঁ দ’ নরে পাচ্ছেন কোন বাঙালি। আর তিনি হলেন জনপ্রিয় অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়। অর্থাৎ ফ্রান্সের সর্বোচ্চ সম্মাননা পাচ্ছেন সৌমিত্র

এর আগে অবশ্য ফরাসি সংস্কৃতি মন্ত্রনালয়ের ‘অফিসিয়ে দে’ জার এ মেত্রিয়ে’ শিরোপায় সম্মানিত হয়েছিলেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়। আর এবার ১৮০২ সালে ফরাসি সম্রাট নেপোলিয়ন বোনাপার্টের চালু-করা সম্মানও তার হাতে।

এ প্রসঙ্গে কালজয়ী এই অভিনেতা বলেন, ‘বাঙালি অভিনেতা হিসেবে আমার কাজ যে আন্তর্জাতিক মানুষজনের মন ছুঁয়েছে, সেটাই আমার কাছে প্রাপ্তি,’।

এটিই ফ্রান্সে কোনও শিল্পীর জন্য সর্বোচ্চ সম্মান, সৌমিত্রই প্রথম ভারতীয় অভিনেতা, যিনি ভূষিত হলেন সেই সর্বোচ্চ ফরাসি শিল্পী-সম্মানে।

স্মৃতিচারণা করে সৌমিত্র বলেন, ‘যে সময়ে ছবির কাজ শুরু করেছি, তার আগে থেকেই ফরাসি দেশের শিল্প, সাহিত্য মুগ্ধ করত আমাকে। সে দেশের কবি, চিত্রকর, চলচ্চিত্রকার, ঔপন্যাসিক, নাট্যকারদের শিল্পকর্মে ডুবে থাকতাম।’

সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় (জন্ম জানুয়ারি ১৯, ১৯৩৫) বিখ্যাত অভিনেতা, আবৃত্তিকার এবং কবি। সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় বিখ্যাত চলচ্চিত্র পরিচালক সত্যজিৎ রায়ের ৩৪টি সিনেমার ভিতর ১৪টিতে অভিনয় করেছেন । ১৯৫৯ সালে তিনি প্রথম সত্যজিৎ রায়ের পরিচালনায় ‘অপুর সংসার’ ছবিতে অভিনয় করেন । পরবর্তী কালে তিনি মৃণাল সেন, তপন সিংহ, অজয় করের মতো পরিচালকদের সাথেও কাজ করেছেন।

সিনেমা ছাড়াও তিনি বহু নাটক, যাত্রা, এবং টিভি ধারাবাহিকে অভিনয় করেছেন।
অভিনয় ছাড়া তিনি নাটক ও কবিতা লিখেছেন,পরিচালনা করেছেন। তিনি একজন খুব উঁচুদরের আবৃত্তিকার।

উল্লেখ্য, ভারতীয় চলচ্চিত্রে সর্বশ্রেষ্ঠ পুরস্কার দাদাসাহেব ফালকে পেয়েছেন এ প্রবীণ অভিনেতা। ২০০৪-এ পেয়েছিলেন পদ্মভূষণ। জাতীয় পুরস্কারের পাশাপাশি ১৯৯৮-এ সঙ্গীত নাটক অ্যাকাডেমি পুরস্কারও পেয়েছিলেন তিনি।