ফ্যাশন স্টেটমেন্টের অন্যতম অনুষঙ্গ স্কার্ফ

ফ্যাশন স্টেটমেন্টের অন্যতম অনুষঙ্গ স্কার্ফ

SHARE
Scarff-ফ্যাশান

আজকাল হাল ফ্যাশনে চলছে সিঙ্গেল কামিজ, কুর্তি, লঙ গাউন ধাঁচের পোশাক, শার্ট প্যাটার্নের কুর্তি, স্কার্ট-টপস, জিন্সের সাথে টিশার্ট বা শার্ট কিংবা ফতুয়া ধাঁচের পোশাকগুলি। আর এ ধরণের পোশাকগুলোর সাথে যে ফ্যাশন অনুষঙ্গটি না হলেই নয় সেটি হলো – স্কার্ফ! একরঙা হোক, কি প্রিন্টের, একটা সুন্দর স্কার্ফ কিন্তু একটা মলিন বা একটু কম সুন্দর ড্রেসের ও পুরো লুকটাই বদলে দিতে পারে। আজ আমরা জানবো ফ্যাশন স্টেটমেন্টের অন্যতম অনুষঙ্গ স্কার্ফ সম্পর্কে-

পশ্চিমা বিশ্বে বেশ আগে থেকে ফ্যাশন স্টেটমেন্ট হিসেবে স্কার্ফের ব্যবহার প্রচলিত ছিল। কখনো গলায় সাধারণভাবে ঝুলিয়ে, কখনো মাফলারের মতো পেঁচিয়ে, কখনো মাথায় পাগড়ির মতো বেঁধে, কখনও বা ব্যান্ডানার মতো মাথায় কিংবা হাতে অথবা ব্যগে বেঁধে স্কার্ফ পরা যায়। এখন আমাদের দেশে ও স্কার্ফের ব্যবহার বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে।

এখন মার্কেট ঘুরে দেখলে চোখে পড়বে হরেক রকম স্কার্ফ। কোনটা জ্যামিতিক নকশার, কোনটায় অনেক রঙের সমাহার, কোনটায় লেইস বসানো, কোনটায় পুঁতি বসানো, কোনটা চেক,ব্লক কিংবা বাটিকের কাজ, কোনটায় দু-তিনটে রঙের শেইডের খেলা, কোনটায় সুতোর কারুকাজ, আবার কোনটা একেবারেই সাধারণ এক রঙের। সাইজে ও রকমভেদ আছে। ওড়নার মতো বড়, মাফলারের মতো চিকন, আয়তাকার, চারকোণা আকৃতির, গলার কাছে মালার মতো প্যাটার্নের ও স্কার্ফ ও দেখতে পাওয়া যায়। এখন মার্কেটে যে স্কার্ফগুলো পাওয়া যায়, সেইগুলো বেশিরভাগই সুতি, লিনেন, জর্জেট, মসলিন, সিল্কের কাপড়ের তৈরি।

আপনার পোশাকটি যদি একরঙা হয়, তাহলে তার সাথে কন্ট্রাস্ট করে প্রিন্টের স্কার্ফ পড়তে পারেন। আর যদি পোশাকটি প্রিন্টের হয়, তাহলে অবশ্যই তার সাথে একরঙা স্কার্ফ পড়বেন। পশ্চিমা ধাঁচের পোশাকে ফিউশন লুক ও আনতে পারেন কিন্তু এই স্কার্ফ ব্যবহার করেই।

বড় ওড়না আজকাল অনেকেই পছন্দ করছেন না, সেক্ষেত্রে গজ কাপড় কিনে সালোয়ার কামিজ বানিয়ে, বা কেনা সালোয়ার কামিজের সাথে অনেকেই স্কার্ফকে বেছে নিচ্ছেন। স্কুল, কলেজ, ইউনিভার্সিটি পড়ুয়া, কিংবা অফিসে যাওয়া কর্মজীবী ব্যস্ত নারীদের ও ফ্যাশন স্টেটমেন্টের অন্যতম অনুষঙ্গ হয়ে উঠেছে এই স্কার্ফ।

অনেকগুলো জামা না কিনে আপনি চাইলে একটা জামাকেই দুটো ভিন্ন স্কার্ফ দিয়ে আলাদা আলাদা দিনে পড়তে পারেন, অথবা একটা স্কার্ফকেই আপনি দুই-তিন টা পোশাকের সাথে মিক্স অ্যান্ড ম্যাচ করে পড়তে পারেন। আপনার ডিফারেন্ট লুক ও তৈরি হবে, আবার খুব বেশি খরচ ও হবে না।

প্রাপ্তিস্থান

রাজধানীর নিউমার্কেট, চাঁদনিচক, গাউছিয়া, উত্তরার এইচ এম প্লাজা, মিরপুরের শাহ আলী মার্কেট, বসুন্ধরা সিটি, জাপান গার্ডেন সিটি, যমুনা ফিউচার পার্কসহ সব বড় বড় মার্কেটে আপনার পছন্দের স্কার্ফ টি পেয়ে যাবেন। সেই সাথে আড়ং, যাত্রা, অঞ্জনস, কে ক্র্যাফট, রং, সেইলর, অ্যাম্বার লাইফস্টাইল, ফ্রিল্যান্ড, জেন্টেল পার্কসহ বেশ কিছু ফ্যাশন হাউজে ও তাদের নিজস্ব ডিজাইনের সুন্দর সুন্দর স্কার্ফ পেয়ে যাবেন।

দরদাম

স্কার্ফের দরদাম সাধারণত নির্ভর করে আপনি কোন জায়গা থেকে স্কার্ফ কিনছেন, স্কার্ফের ম্যাটেরিয়াল এবং ডিজাইনের উপর। তবে মোটামুটিভাবে আপনি ২৫০/- টাকা থেকে শুরু করে ১,২০০/- টাকার ভিতরে আপনার পছন্দের স্কার্ফটি পেয়ে যাবেন।