ফল দিবে যৌবনশক্তি

ফল দিবে যৌবনশক্তি

SHARE
Fruits-makes evergreen

আপনার বয়স চল্লিশ বা এর কাছাকাছি? কিন্তু চোখ-মুখে ভারে নত হওয়া বয়সের ছাপ? শরীরে বয়সের চিহ্ন দেখে আঁতকে উঠছেন নিজেই? বন্ধু-বান্ধব, পাড়া-পড়শি এমনকি নিজের সহধর্মিণীই ঠাট্টা করছে আপনার বুড়িয়ে যাওয়া নিয়ে? আর এর জন্য প্রতিদিন পয়সা খরচ করে পাতার পর পাতা ক্যালসিয়াম বড়ি কিনতে হচ্ছে? এতোসব সমস্যার সমাধান করা যায় মাত্র একটি উপায়ে তারপরেও তা আপনার হাতের মুঠোতে। ফল দিবে যৌবনশক্তি বয়স বাড়ার আগেই এই অনাকাংক্ষিত বয়স বাড়া থেকে নিজেকে রক্ষা করার সমাধান করবে বিভিন্ন ধরনের ফলমূল। এই ফলই দিবে আপনাকে যৌবনশক্তি।  এখন আপনাদের সামনে তুলে ধরবো এমন কয়েকটি ফলের কথা যা আপনার তারুণ্যকে করবে দীর্ঘস্থায়ী, প্রাণবন্ত আর উচ্ছল রাখবে আপনার চেহারাকে……

পাকা জাম/স্ট্রবেরিঃ বিজ্ঞানীরা বলেন, জাম জাতীয় ফলে প্রচুর পরিমাণে এন্টি-অক্সিডেন্ট থাকে। আর এই এন্টি-অক্সিডেন্ট আপনার চামড়ার যত্ন নেয়। তাই ছোট বাচ্চাদের মতো বেশি বেশি জাম খেয়ে মুখ রঙিন করে ফেলুন। যা আপনার ত্বককে দিবে সুরক্ষা, মুছে ফেলবে বয়সের ছাপ। জামের বদলোতে প্রচুর পরিমাণে স্ট্রবেরিও খেতে পারেন।

আঙুরঃ এটি প্রচুর পরিমাণ এন্টি-অক্সিডেন্টসমৃদ্ধ যা শরীরে দীর্ঘক্ষণ পর্যন্ত কার্যকর থাকে। তাই সকাল বা বিকালের নাস্তায় কিছু পরিমাণ আঙুর খাদ্যতালিকায় রাখতেই পারেন।

ডালিমঃ স্বাস্থ্য সুরক্ষায় ডালিমের খ্যাতি বিশ্বজুড়ে। সেই সাথে ফলটি কমিয়ে দিবে আপনার বয়সও। এতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে আয়রন,ভিটামিন সি আর এন্টি-অক্সিডেন্ট। তা আপনার ত্বককে রক্ষা করবে বন্ধুর মতো। তাই ঘরে ফেরার পথে মাঝে মাঝেই কিনে আনুন ফলটি। বিউটি ক্রিম, লোশন কিংবা শ্যাম্পু আর কন্ডিশনার বানাতে কিন্তু ডালিমই ব্যবহার করা হয়। সুতরাং চেহারায় লাবণ্য ফিরিয়ে আনতে এবং বয়সটা একটু কমাতে ডালিমের সাথে আড্ডা জমানোটাই উত্তম উপায়।

আপেলঃ আপেলকে বলা হয় সার্বজনীন রোগ প্রতিরোধী ফল। আপেলের ভেতরের রসালো অংশের তুলনায় আপেলের খোসায় অধিক পরিমাণে পলিফেনল জাতীয় উপাদান পাওয়া যায় যা আপনার যৌবনকে এক নতুন মাত্রা দান করবে। তাই আপেলকে ছোট করে দেখার কোনো কারণই নেই।  

তরমুজঃ প্রতিদিন দুই কাপ পরিমাণ তরমুজ খেলে শরীরে ভিটামিন ‘এ’ ও ‘সি’ এর চাহিদা মিটে। তাছাড়া এতে থাকা পটাশিয়াম শরীরের মিনারেলসের মধ্যে ভারসাম্য বজায় রাখতে সাহায্য করে। খোসাসহ তরমুজ ক্যানসার রোগীদের জন্য খুবই উপকারী। এছাড়া তরমুজের বীজ প্রচুর পরিমাণ পুষ্টিগুণ সম্পন্ন। এ ছাড়া অ্যাজমা, ডায়াবেটিসের মতো রোগ এবং ব্যথা উপশমে তরমুজ ভারি উপকারী।

আখরোটঃ এতে থাকে এলাজিক এসিড নামে একটি এন্টি-অক্সিডেন্ট জাতীয় উপাদান যা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে এবং ক্যানসার প্রতিরোধে শক্তিশালী ভূমিকা রাখে।

কমলাঃ বয়স ধরে রাখতে এর জুড়ি মেলা ভার। কারণ এতে আছে প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন ‘সি’ যা ত্বকের তারুণ্য ধরে রাখতে বেশ কার্যকর।

সুতরাং, শুধু তারুণ্য বা যৌবন ধরে রাখতেই ফলমূল খাওয়া উচিত নয়। এটি একইসাথে আপনাকে করে তুলবে রোগ- প্রতিরোধমখ, কর্মক্ষম ও দৃঢ় প্রত্যয়ী।