প্রিয়াঙ্কার পাশে দাঁড়ালেন সানি লিওন

প্রিয়াঙ্কার পাশে দাঁড়ালেন সানি লিওন

SHARE
Prianka-Sunny leone

বলিউডে আসার পর খুব বেশি মানুষের সহযোগিতা পান নি আবেদনময়ী বলিউড অভিনেত্রী ও সাবেক পর্ণস্টার সানি লিওন। এবার তাই প্রিয়াঙ্কার পাশে দাঁড়ালেন সানি লিওন

অহেতুক সমালোচনার বেদনা যে কতটুকু সে অভিজ্ঞতা বেশ ভালোই আছে সানির। তাই বার্লিনে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে প্রিয়াঙ্কার বৈঠকে পোশাক বিতর্ক শুরু হওয়ার পর থেকে সোশ্যাল মিডিয়ায় যাচ্ছেতাইভাবে ট্রোলড হয়েছেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। তবে এই বিতর্ক নিয়ে বেওয়াচ তারকার পাশে দাঁড়িয়েছেন বলিউড সুন্দরী সানি লিওন।

এ প্রসঙ্গে সানি মন্তব্য করেছেন, প্রিয়াঙ্কার পোশাকে প্রধানমন্ত্রীর যদি কোনও আপত্তি না থাকে, তবে কার কী বলার আছে।

সানি আরো বলেন, দেশের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে একজন অত্যন্ত বুদ্ধিমান ব্যক্তিকে নির্বাচন করেছি আমরা। প্রধানমন্ত্রী মোদীর যদি এ ব্যাপারে কিছু বলার থাকত, তবে তিনি জানাতেন। তা যখন তিনি করেননি, তাহলে এ নিয়ে আর কারও কিছু বলার থাকতে পারে বলে মনে করেন না সানি।

তার কথায়, প্রিয়াঙ্কা বুদ্ধিমতী নারী, সমাজের জন্য অনেক কিছু করেছেন। সেই কাজ দিয়ে তাকে বিচার করা হোক, তার পোশাক দিয়ে নয়।

বলিউডের তুলনায় ইদানীং হলিউডেই বেশি দেখতে পাওয়া যায় প্রিয়াঙ্কাকে। টেলিভিশন সিরিজ কোয়ান্টিকোর নতুন পর্বের শুটিং তো রয়েছেই। একই সঙ্গে রয়েছে হলিউড ছবি বেওয়াচের প্রচারের দায়িত্ব। সেই সূত্রেই বার্লিনে গিয়েছিলেন পিগি চপস। একই সময় বার্লিনে ছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিও। ঘটনাচক্রে একই হোটেলে ছিলেন দু’জনে। অভিনেত্রীর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎও সারেন প্রধানমন্ত্রী। কিন্তু এই সাক্ষাতেই বিপাকে পড়েন প্রিয়াঙ্কা। কারণ তাঁর পোশাক। অস্ট্রেলিয়ার ডিজাইনার জিমারম্যানের পোশাক পরেছিলেন অভিনেত্রী। সাদা রঙের সেই ফ্লোরাস ড্রেস হাঁটুর খানিকটা উপরেই শেষ হয়ে গিয়েছে।

এই পোশাকের সৌজন্যেই সোশ্যাল মিডিয়ায় রোষের মুখে পড়েছেন অভিনেত্রী। অনেকেই তাঁর পোশাক নিয়ে কটাক্ষ করেছেন। কেউ কেউ প্রশ্ন তুলেছেন, ভারতের প্রধানমন্ত্রীর সামনে কী ধরনের পোশাক পরে বসতে হয়, তা কি অভিনেত্রীর জানা নেই? অনেকে আবার জানতে চেয়েছেন বিদেশে গিয়ে কি প্রিয়াঙ্কা নিজের দেশের সংস্কৃতি ভুলে গিয়েছেন?