পটলের স্বাস্থ্য উপকারিতা

পটলের স্বাস্থ্য উপকারিতা

SHARE
Health Benefits of Trichosanthes dioica

অনেকেই জানেন না পটলের অগণিত স্বাস্থ্য উপকারিতার কথা। এই একটি পুষ্টিকর খাদ্য। এতে রয়েছে ভিটামিন এ, ভিটামিন বি ১, ভিটামিন বি ২ ও ভিটামিন সি, ক্যালসিয়াম ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। আয়ুর্বেদে গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা সমাধানে ব্যবহার করা হয় পটল। আসুন তবে জেনে নেওয়া যাক পটলের স্বাস্থ্য উপকারিতা বিষয়ে

১। কোলেস্টেরল ও ব্লাড সুগার কমাতে-
পটলের ছোট গোলাকার বীচিগুলো কোলেস্টেরল ও ব্লাড সুগারের মাত্রা প্রাকৃতিকভাবে কমাতে সাহায্য করে।

২। ওজন কমাতে-
পটলে ক্যালরির পরিমাণ কম থাকে। তাই ওজন কমানোর জন্য নিশ্চিন্তে পটলের তরকারি খেতে পারেন। এটি পেট ভরা রাখতে ও ক্ষুধা কমাতে সাহায্য করে।

৩। রক্তকে পরিশোধিত করতে-
পটলের আরেকটি স্বাস্থ্য উপকারিতা হচ্ছে এটি রক্তকে পরিশোধিত করে। এর ফলে ত্বকের যত্নেও এই সবুজ সবজিটি ভালো কাজ করে।

৪।হজমে-
সবুজ রঙের সবজিটিতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার যা খাদ্য হজমে সাহায্য করে। এছাড়াও এটি গ্যাস্ট্রোইনটেস্টাইনাল সমস্যা সমাধানে এবং লিভারের সাথে সম্পর্কিত সমস্যা সমাধানেও সাহায্য করে।

৫।কোষ্ঠকাঠিন্য নিরাময়ে-
পটলের বীজ এমন একটি স্বাস্থ্যকর বীজ যা কোষ্ঠকাঠিন্য নিরাময়ে এবং মল নির্গমনে সাহায্য করে।

৬। ত্বকের জন্য-
পটলে ভিটামিন এ ও সি থাকে এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকে বলে ত্বকের জন্য উপকারী। ফ্রি র‍্যাডিকেলের বিস্তার রোধ করে বয়সের ছাপ প্রতিরোধে সাহায্য করে পটল।

৭। ঠান্ডা নিরাময়ে-
আয়ুর্বেদ চিকিৎসায় ঠান্ডা, জ্বর ও গলা ব্যথা কমতে ঔষধ হিসেবে ব্যবহার হয় পটল।
এবার জেনে নেওয়া যাক পটলের ঔষধি গুনাগুণ সম্পর্কে :

পটলের রস মাথায় লাগালে মাথা ব্যথা কমে।

– পটলের তরকারী খেলে ত্বকের সমস্যা দূর হয়।

– পটল ও ধনেপাতা থেঁতলে পানিতে ভিজিয়ে রাখুন। এই মিশ্রণটিকে ৩ ভাগ করে এর সাথে মধু মিশিয়ে ৩ বারে পান করুন। এতে হজমের সমস্যা দূর হবে।

– পটলের পাতার রস দ্রুত ক্ষত নিরাময়ে সাহায্য করে এবং টাকের সমস্যা সমাধানেও কাজে লাগে।

নেপালে অসুস্থ রোগীদের পটলের স্যুপ খাওয়ানো হয়। আমাদের দেশে পটল ভাজি, পটলের দোলমা, মাছ বা মাংসের সাথে বা অন্য সবজির সাথে রান্না করা হয় পটল । দক্ষিণ এশিয়া ও ওয়েস্ট ইন্ডিজে এটি  আলুর সাথে রান্না করা হয়। ইন্দোনেশিয়ায় পটল বৈচিত্রময় রান্নায় ব্যবহার করা হয় যেমন- স্টার ফ্রাই, নারিকেল দুধে অথবা ভাপে সিদ্ধ করে রান্না করা হয় পটল। এটি এশিয়া ও অস্ট্রেলিয়াতে পাওয়া যায়। সাধারণত গ্রীষ্মের সময় পাওয়া যায় এই সবজিটি।