নিলামে উঠতে যাচ্ছে জর্জ হ্যারিসনের সেতার

নিলামে উঠতে যাচ্ছে জর্জ হ্যারিসনের সেতার

SHARE
Jorze Harison-Setar

বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে জর্জ হ্যারিসনের অবদানের কথা কম-বেশি আমরা সবাই জানি। কনসার্ট ফর বাংলাদেশ-এর প্রধান উদ্যোক্তা জর্জ হ্যারিসনের একটি সেতার চলতি মাসেই যুক্তরাষ্ট্রে নিলামে উঠছে। জর্জ হ্যারিসন ১৯৬৫ সালে সেতারটি কিনেছিলেন লন্ডনের অক্সফোর্ড স্ট্রিটের একটি দোকান থেকে। তবে সেতারটি তৈরি হয়েছিল কলকাতায়। নিলামে উঠতে যাচ্ছে জর্জ হ্যারিসনের সেতার

আগামী ২৮ সেপ্টেম্বর এই সেতারটির জন্য বিডিং শুরু হবে ৫০ হাজার ডলার থেকে।

উপমহাদেশের বরেণ্য ওস্তাদ পণ্ডিত রবিশংকরের কাছে সেতার বাজানো শিখেছিলেন জর্জ হ্যারিসন। শুধু সেতার শিখেই ক্ষান্ত হননি তিনি। বিটলসের জনপ্রিয় ‘নরওয়েজিয়ান উড’ গানটি গাওয়ার সময় সেতারও বাজিয়েছিলেন তিনি।

২০০০ সালে বিবিসিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে রবিশঙ্কর বলেছিলেন, তিনি যখন প্রথম হ্যারিসনকে সেতার বাজাতে শেখান, সেটা তার মোটেও ভাল লাগেনি।

হ্যারিসন নিজেও অবশ্য সে ব্যাপারে একমত ছিলেন। ওই গানে সেতারের ব্যবহার যে খুব সাধারণ ছিল, সেটা তিনিও পরে স্বীকার করেছেন।

উল্লেখ্য, জর্জ হ্যারিসন ছিলেন বিংশ শতাব্দীর অত্যন্ত প্রতিভাবান একজন জনপ্রিয় গায়ক এবং গিটারিস্ট। তবে তাঁর প্রতিভা কেবলমাত্র এ দু’য়ে সীমাবদ্ধ থাকেনি। তাঁর বিচরণের ক্ষেত্র ব্যাপ্ত ছিল সঙ্গীত পরিচালনা, রেকর্ড প্রযোজনা এবং চলচ্চিত্র প্রযোজনা অব্দি। বিখ্যাত ব্যান্ড সঙ্গীত দল দ্য বিটল্‌স এর চার সদস্যের একজন হিসেবেই তিনি বিখ্যাত হয়ে ওঠেন।

পপ সঙ্গীতের জনপ্রিয় ইংল্যান্ডের এই শিল্পী বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় পন্ডিত রবি শংকরের অনুরোধে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্ক শহরের ম্যাডিসন স্কোয়ার গার্ডেনে ১৯৭১ সালের ১লা আগষ্টে এক বেনিফিট সঙ্গীত অনুষ্ঠানের কনসার্ট ফর বাংলাদেশ আয়োজন করেছিলেন। এই কনসার্ট হতে সংগৃহীত ২,৫০,০০০ ডলার বাংলাদেশের উদ্বাস্তুদের জন্য দেয়া হয়েছিল।

মূলত: লীড গিটারিস্ট হলেও বিটলসের প্রতিটি এলবামেই জর্জ হ্যারিসনের নিজের লিখা ও সুর দেয়া দু’একটি একক গান থাকতো যা তাঁর প্রতিভার পরিচায়ক ছিল।