নাসা আয়োজিত প্রতিযোগিতার ফাইনাল রাউন্ডে বাংলাদেশের অ্যাপস

নাসা আয়োজিত প্রতিযোগিতার ফাইনাল রাউন্ডে বাংলাদেশের অ্যাপস

SHARE
Bangladesh Apps in the final round of the competition organized by NASA

প্রতি বছর বিশ্বজুড়ে প্রায় সাড়ে চার লাখ মানুষের মৃত্যু হয় প্রাকৃতিক ও মানবসৃষ্ট অগ্নিকাণ্ডের ফলে। এছাড়াও শুধুমাত্র পর্যাপ্ত উদ্ধারকাজের অভাবে ভূমিকম্প ও দালান ধসের কারণে মৃত্যু হয় ১৪ হাজার মানুষের। এ সকল সমস্যার সহজ প্রাযুক্তিক সমাধান বাতলে দিয়ে বিশ্বকে মাত করছে বাংলাদেশের টিম ‘আত্ম-উন্মেষ’

যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা (NASA) আয়োজিত বিশ্বের সর্ববৃহৎ হ্যাকাথন প্রতিযোগিতা–‘নাসা স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জ’ এর ফাইনাল রাউন্ডে বর্তমানে প্রতিযোগিতা করছে দলটি। গত ২৯-৩০ এপ্রিলে আয়োজিত প্রতিযোগিতাটির জোনাল রাউন্ডে ৫০টি টিমের সাথে প্রতিযোগিতা করে টিমটি ঢাকা আঞ্চলিক পর্যায়ে লোকাল পিপলস চয়েস পুরস্কর বিজয়ী হয়।

এরপর দুই সপ্তাহব্যাপী সেমিফাইনাল রাউন্ডের ভোটিং এ শীর্ষ পাঁচে জায়গা ধরে রেখে মনোনীত হয় ফাইনালের জন্যে। সর্বশেষ গ্লোবাল লিডারশীপ তালিকা অনুসারে, প্রকল্পটি দ্বিতীয়স্থানে অবস্থান করছিল। ৫জুন পর্যন্ত অনলাইন ভোটাভুটি শেষে, বিজয়ী ঘোষণা করা হবে এই শীর্ষ ৫ দল থেকে।

আপাতদৃষ্টিতে ‘আত্ম-উন্মেষ’ এর বানানো প্রকল্পটি বিশ্বের প্রথম কম্বো এপ্লিকেশন, যেখানে একই সাথে মোবাইল গেইমিং ও ব্যক্তি নিরাপত্তার বিষয়াদির সমন্বয় করা আছে। এই ছোট দলটি এমন একটি গেমস ডেভলপ করার চেষ্টা করেছিলো যা দিয়ে খেলার পাশাপাশি কাজও হবে!

তারা একটি অ্যাপস বানিয়েছে যা ব্যবহারকারীকে মহাকাশ সম্পর্কে খেলার ছলে নানা তথ্য জানাবে এবং পাশাপাশি নানা বিপদে আপদে আপনার কাজে আসবে। ভূমিকম্পের ফলে কোন ভবনে আটকা পড়লে এই অ্যাপস ব্যবহার করে নিখুঁত অবস্থান জানানো যাবে। কোথাও আগুন লাগলে এই অ্যাপস ব্যবহার করে ফায়ার সার্ভিস ও নাসা ডেটা সেন্টারের কাছে সতর্ক বার্তা পাঠানো যাবে।

এতে যুক্ত করা হয়েছে নিজস্ব রোবোটিক প্রোটোটাইপ  ‘রোবো-১৮০৪’, যা অ্যাপের ডিসেন্ট কন্ট্রোলিং এর মাধ্যমে বনভূমিতে ঘুরে তাপমাত্রার পরিবর্তন নির্ধারণ করে সতর্ক করবে।

“আত্ম-উন্মেষ”কে এখন আরো একধাপ এগিয়ে নিতে প্রয়োজন সমর্থন। অনলাইন ভোটের মাধ্যমে নির্বাচিত হলেই প্রকল্পটি চূড়ান্ত প্রতিযোগিতায় মনোনীত হবে।

“আত্ম-উন্মেষ”কে প্রথমবার ভোট দেওয়ার ক্ষেত্রে, প্রথমেই https://2017.spaceappschallenge.org/auth/signup লিংক এ গিয়ে একটি একাউন্ট খুলতে হবে। সাইন আপ করা হয়ে গেলে ইমেইল এর মেইল বক্স এ ঢুকে “verify your account ” এ কনফার্ম করতে হবে। একাউন্ট তৈরি হয়ে গেলে, “https://2017.spaceappschallenge.org/vote/finalists” এ গিয়ে দেখা যাবে এই টিমকে। তখন ভোট বাটনটি চেপে রাখতে হবে যতক্ষন না এটি সবুজ হয়। সবুজ হলেই ভোট দেয়া হয়ে গেছে বলে গণ্য হবে।

পরের বার থেকে শুধু লগইন করে “https://2017.spaceappschallenge.org/vote/finalists” এ গেলেই দেখা যাবে এই টিমকে। তখন ভোট বাটনটি চেপে রাখতে হবে যতক্ষণ না এটি সবুজ হয়। তাহলেই ভোট দেয়া হয়ে যাবে।

প্রতিদিন একটি দলকে একটি করে ভোট দেওয়া যাবে। এছাড়া যেকোন তথ্যের জন্য https://www.facebook.com/events/260940634 এই ইভেন্ট লিঙ্ক এ যোগাযোগ করা যাবে।

এর সঙ্গে সংশ্লিষ্টরা জানান, বাংলাদেশি কোনো প্রকল্প পিপলস চয়েজ ক্যাটাগরিতে ফাইনালে উঠে আসা দেশের জন্য খুবই আনন্দ এবং গর্বের। [সুত্রঃ চ্যানেল আই]