ত্বকভেদে কমলালেবুর ব্যবহার

ত্বকভেদে কমলালেবুর ব্যবহার

SHARE
Orrange for skin care

ভিটামিন ‘সি’তে ভরপুর কমলালেবু ত্বকের যত্নে খুবই উপকারী। বাজারে সারা বছরই কমলালেবুর দেখা মিললেও মূলত শীতের সময়টাতে প্রচুর পরিমাণে পাওয়া যায় এই ফলটি। আর তাই ত্বকের পরিচর্যায় ব্যবহার করতে পারেন কমলালেবু।

তৈলাক্ত ত্বকের উপযোগী ক্লিনজার তৈরি করতে ২ চা চামচ কমলার রসের সঙ্গে ১ চামচ চিনি নিয়ে একসঙ্গে মিশিয়ে মুখে দুই মিনিট হাল্কা হাতে ম্যাসাজ করুন। এরপর সার্কেল মুভমেন্টে এক মিনিট ম্যাসাজ করুন। পানি ঝাপটা দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। কমলালেবুর রসের সঙ্গে চিনি মেশানোয় স্ক্রার্বিংয়ের দরকার হবে না।মুখের ত্বক পরিষ্কার হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ডিপ ক্লিনও হয়ে যাবে।

এরপর সমপরিমাণ শশার রস ও কমলার রস মিলিয়ে মুখে লাগিয়ে দুমিনিট রেখে আবারো পানি ঝাপটা দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এটা আপনার ত্বককে টোনিং করতে সাহায্য করবে।

স্ক্রার্বিং করার ফলে লোমকূপের ছিদ্রগুলো বড় হয়ে যায়।আর তাই যখনই ত্বকে স্ক্রার্বিং করবেন টোনিং করতে ভুলবেন না। টোনিং করার ফলে আপনার ত্বকের ছিদ্রগুলো আবার ছোট হয়ে আগের মতো হয়ে যাবে।

বর্তমানে বাজারে অনেক ধরনের টোনার পাওয়া যায়। সেখান থেকে ত্বকের ধরন অনুযায়ী টোনার বেছে নিন। তবে ঘরে তৈরি ফ্রেশ টোনারের কার্যকারিতা অন্যরকম হবে। ত্বক ক্লিন করে মুছে টোনিং করে নিন এরপর ময়েশ্চারাজিং করুন।

শুষ্ক ত্বকের অধিকারীরাও এ পদ্ধতিতে ত্বক ক্লিন করতে পারবেন। শুধুমাত্র এর সঙ্গে দুই ফোটা লেবুর রস ও মধু মিলিয়ে নিলেই  তৈরি হয়ে যাবে শুষ্ক ত্বকের উপযোগী ক্লিনজার।

এ ধরনের ত্বকের জন্য ১ চা চামচ কমলার রস, এক চা চামচ চিনি ও একটু লেবুর রস, দুই ফোটা মধু দিয়ে প্রথমে ত্বক পরিষ্কার করে নিন। এরপর শসা ও কমলার রস মিলিয়ে টোনিং করুন। এরপর আমন্ড অয়েলসমৃদ্ধ ময়েশ্চারাইজার লাগিয়ে নিন। এভাবে নিয়মিত পরিচর্যা আপনার ত্বকে এনে দেবে এক আলাদা মাত্রা।