তিন শিশু সন্তানসহ জঙ্গি মারজানের বোনের আত্মসমর্পণ

তিন শিশু সন্তানসহ জঙ্গি মারজানের বোনের আত্মসমর্পণ

SHARE
Militant Marjan's sister surrender with three children

যশোরে পুলিশের কাছে গুলশান হামলার অন্যতম পরিকল্পনাকারী নুরুল ইসলাম মারজানের বোন খাদিজা আত্মসমর্পণ করেছেন। সঙ্গে রয়েছে তিন সন্তান। বর্তমানে তারা পুলিশের হেফাজতে রয়েছে। এখন বাড়িটির যে ফ্ল্যাটে ছিল থাকত সেই ভবনে তল্লাশি চালাচ্ছে বোমা নিষ্ক্রয়কারী দল।

সোমবার বিকেল ৩টা ৫মিনিটে খাদিজা আত্মসমর্পণ করেন। আত্মসমর্পণ করার আগে খাদজিা তার পরিবারের সঙ্গে ফোনে কথা বলেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ঘটনাস্থলে থাকা কোতোয়ালি থানা পুলিশের ওসি একেএম আজমল হুদা।

গতকাল রোববার রাত ১০টার পর থেকে শহরের ঘোপ নওয়াপাড়া রোড জামে মসজিদের পেছনে ওই বাড়ি ঘিরে রাখা হয়।

যশোর কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ কে এম আজমল হুদা বলেন, ওই বাড়িতে অবস্থানকারী জঙ্গি মারজানের বোনের আত্মসমর্পণ করার ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন। তবে তিনি একটি শর্ত দিয়েছেন। শর্ত অনুযায়ী আত্মসমর্পণের সময় তাঁর মা-বাবাকে ঘটনাস্থলে উপস্থিত থাকতে হবে। এর পর খাদিজার মা-বাবাকে পাবনা থেকে যশোর আনার ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

স্থানীয়রা জানান, যশোরের ঘোপ নওয়াপাড়া রোড মসজিদের পেছনের বাড়িটির মালিক যশোর জিলা স্কুলের শিক্ষক হায়দার আলী। হায়দার আলী জানান, চারতলা বাড়ির দ্বিতীয় তলার ভাড়াটিয়া মশিউর রহমান। ওই ফ্ল্যাটে জঙ্গি রয়েছে বলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সন্দেহ করছে।

তিনি আরও জানান, মশিউর রহমান একটি হারবাল কোম্পানিতে চাকরি করেন। তার বাড়ি কুষ্টিয়ায়।

এর আগে বেলা ১১টা ১৫ মিনিটে হ্যান্ড মাইকে পুলিশ সুপার আনিসুর রহমান খাদিজাকে আত্মসমর্পণ করার আহ্বান জানিয়ে বলেন, ‘আপনি নেমে আসুন। আপনার সন্তানদের কথা চিন্তা করুন। আমরা আপনাকে সাহায্য করব।’

LEAVE A REPLY