ঢাকা টেস্টে অসহায় আত্মসমর্পণ

ঢাকা টেস্টে অসহায় আত্মসমর্পণ

SHARE
Helpless surrender in Dhaka Test

লঙ্কানদের স্পিনে কূপোকাত করতে চেয়েছিল টাইগররা। উল্টো সেই কূপেই ডুবে মরলো। মিরপুর টেস্টে জয়ের জন্য চতুর্থ ইনিংসে তিন শতাধিক রান তাড়া করতে নেমে মাত্র ২৯.৩ ওভার টিকতে পেরেছে বাংলাদেশ। প্রথম ইনিংসের মতো দ্বিতীয় ইনিংসেও ভয়াবহ ব্যাটিং বিপর্যয়ের ধারাবাহিকতা বজায় রেখে প্রায় আড়াই দিনেই টেস্ট হারল মাহমুদউল্লাহর দল। আড়াই দিন স্থায়ী এই ম্যাচে লঙ্কানদের কাছে ২১৫ রানে হার মেনেছে বাংলাদেশ। চট্টগ্রাম টেস্ট ড্র হওয়ায় দুই ম্যাচ সিরিজ ১-০ ব্যবধানে জিতে নিল শ্রীলঙ্কা।

মিরপুরের শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে শ্রীলঙ্কা টস জিতে ব্যাটিংয়ে নামে। প্রথম দিনেই আবদুর রাজ্জাক ও তাইজুলের স্পিন বিষে নীল হয়ে ২২২ রানে গিয়ে থাকে লঙ্কানরা। এরপর বাংলাদেশ প্রথম ইনিংসে লঙ্কানদের স্পিন-পেস মিশেলে ১১০ রানে গিয়ে থামে।

১১২ রানে এগিয়ে থেকে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিং শুরু করে শ্রীলঙ্কা। সেখানে ভেল্কি দেখান মুস্তাফিজ ও তাইজুল ইসলাম। অবশেষে দ্বিতীয় ইনিংসে শ্রীলঙ্কা ২২৬ রানে গিয়ে থামে। তখন তারা বাংলাদেশের জন্য ৩৩৯ রানের টার্গেট নির্ধারণ করে দেয়।

লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে দলীয় ১৯ রানের মধ্যেই দুই ওপেনার তামিম ইকবাল (২) ও ইমরুল কায়েস (১৭) সাজঘরে ফিরে যান। এরপর দুই উইকেটে ৫৭ রান নিয়ে মধ্যাহ্ন বিরতিতে যায় বাংলাদেশ দল। বিরতির পর দ্বিতীয় সেশনের শুরুতেই হোঁচট খায় টাইগাররা। দলের অন্যতম নির্ভরযোগ্য ব্যাটসম্যান মুমিনুল হক ফিরে যান হেরাথের বলে। উইকেটের পেছনে দিকবেলার হাতে ধরা পড়ার আগে ৪৭ বল থেকে তিনটি চারের মারে তিনি করেছেন ইনিংস সর্বোচ্চ ৩৩ রান। মুমিনুলকে অনুসরণ করে একে একে লিটন দাস (১২) ও মাহমুদউল্লাহ (৬)। অবশ্য প্রথম পাঁচ উইকেট হারিয়ে ১০০ রান করেছিল। তবে ১১০ রানে ষষ্ঠ উইকেট হারানোর পর বাংলাদেশ দলীয় স্কোরে আর যোগ করেছে মাত্র ১৩ রান।

শ্রীলঙ্কা ১ম ইনিংস: ৬৫.৩ ওভারে ২২২

(মেন্ডিস ৬৫, ধনঞ্জয়া ১৯, গুনাথিলাকা ১৩, রোশেন ৫৬, দিলরুয়ান ৩১, আকিলা ২০; মিরাজ ০/৫৪, রাজ্জাক ৪/৬৩, তাইজুল ৪/৮৩, মোস্তাফিজ ২/১৭।)

বাংলাদেশ ১ম ইনিংস: ৪৫.৪ ওভারে ১১০

(তামিম ৪, ইমরুল ১৯, মুমিনুল ০, মুশফিক ১, লিটন ২৫, মিরাজ ৩৮*, মাহমুদউল্লাহ ১৭, সাব্বির ০, রাজ্জাক ১, তাইজুল ১, মোস্তাফিজ ০; লাকমাল ১২-৪-২৫-২, দিলরুয়ান ১১.৪-৪-৩২-২, ধনঞ্জয়া ১০-২-২০-৩, হেরাথ ১২-১-৩১-০)

শ্রীলঙ্কা দ্বিতীয় ইনিংস: ৭৫.৩ ওভারে ২২৬ (লিড ৩৩৮।)

(করুনারত্নে ৩২, চান্দিমাল ৩০, রোশেন ৭০*; মোস্তাফিজ ৩/৪৯, তাইজুল ৪/৭৬, ,মিরাজ ২/৩৭, রাজ্জাক ১/৬০। )

বাংলাদেশ দ্বিতীয় ইনিংস: ২৯.৩ ওভারে ১২৩

(তামিম ২, ইমরুল ১৭, মুমিনুল ৩৩, মুশফিক ২৫, লিটন ১২, রিয়াদ ৬, সাব্বির ১, মিরাজ ৭, রাজ্জাক ২, তাইজুল ৬, মোস্তাফিজ ৫*)

২১৫ রানে জয়ী শ্রীলঙ্কা।

ম্যান অব দ্য ম্যাচ: রোশেন সিলভা।

ম্যান অব দ্য সিরিজ: রোশেন সিলভা।

LEAVE A REPLY