ট্রাম্পের অভিবাসন নীতির শিকার ১১ বাংলাদেশি

ট্রাম্পের অভিবাসন নীতির শিকার ১১ বাংলাদেশি

SHARE
11 Bangladeshi victims of trump migration policy

যুক্তরাষ্ট্রকে ‘মেক গ্রেট অ্যাগেইন’ বলে স্বপ্ন দেখানো প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের অভিবাসন নীতির শিকার হলেন ১১ বাংলাদেশি। কাগজপত্রহীন এই অভিবাসীদের জোর করে বাংলাদেশে ফেরত পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। ১১ জনের মধ্যে ১০ জনই নিউইয়র্কে বসবাসরত বাংলাদেশি।

বুধবার (১১ অক্টোবর) ভোরে ১১ জনকে আটক করে অ্যারিজোনার দুর্গম ডিপোর্টেশন কেন্দ্র থেকে বাংলাদেশগামী বিশেষ ফ্লাইটে জোর করে তুলে দেয়া হয়। ইমিগ্রেশন অ্যান্ড কাস্টমস এনফোর্সমেন্ট’র মিডিয়া দপ্তর এ তথ্যের সত্যতা স্বীকার করে জানান, ‘এটি চলিত কার্যক্রমেরই একটি অংশ।

বাংলাদেশে ফেরত পাঠানো ব্যক্তিরা হলেন সেলিম আহমেদ, করিম চৌধুরী, মুজিবুর রহমান, মোজাম্মেল হক, বাবলু শরিফ, মোহাম্মদ বাদল রনি, মোহাম্মদ ফরিদুল মওলা, মনিরুল ইসলাম, মোহাম্মদ আম্বিয়া, নাসরিন চৌধুরী ও খায়রুল আম্বিয়া।

যুক্তরাষ্ট্র থেকে বিতাড়িত ব্যক্তিদের স্বজনরা অভিযোগ করেছেন, বাংলাদেশ কর্তৃপক্ষ দ্রুত পাসপোর্ট দিয়ে মার্কিন অভিবাসন বিভাগকে সহযোগিতা করেছে। এতে ভুক্তভোগী অভিবাসী ও তাদের পরিবার আইনের সাহায্য নেয়ার আগেই বিতাড়ন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়ে যাচ্ছে।

এদিকে দেশে ফেরত পাঠানোর জন্য ওই ১১ বাংলাদেশিকে গ্রেপ্তারের পর তাদের মুক্তির জন্য সিনেট ও কংগ্রেসে আবেদন করেছিলেন একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার প্রধান মাজেদা উদ্দিন। তিনি বলেন, এই বাংলাদেশিরা কোনো ধরনের অপরাধে জড়িত ছিলেন না।

তিনি আরো বলেন, সামাজিক ও জাতীয় নিরাপত্তার স্বার্থে শুধুমাত্র গুরুতর অপরাধীদের ধরে যুক্তরাষ্ট্র থেকে বহিষ্কার করা হচ্ছে বলে দাবি করছেন ট্রাম্প। অথচ এই ১১ বাংলাদেশির একজনও কোনো ধরনের অপরাধে লিপ্ত ছিলেন না। তাদের অপরাধ হচ্ছে অভিবাসনের মর্যাদা পাননি। তারা সকলেই ব্যবসা-বাণিজ্য কিংবা দোকানের বিক্রেতা অথবা ট্যাক্সি চালিয়ে দিনাতিপাত করছিলেন।

LEAVE A REPLY