চটজলদি ইফতার

চটজলদি ইফতার

SHARE
Iftar recepies

রমযান মাসে  সারাদিন রোজা রাখার পর সূর্যাস্তের সময় পরিবারের সবাই একত্রে বসে ইফতার গ্রহণ করা প্রত্যেকটি মুসলিম পরিবারের সাধারণ রীতি। সাধারণত বেশিরভাগ এলাকাতেই ইফতারের সময় সুন্নত হিসেবে খেজুর মুখে দিয়ে রোজা ভাঙার পরে পানি বা শরবত পান করে খাবার শুরু করতে দেখা যায়। তবে অনেক স্থানে ভিজা চাল মুখে দেবার মাধ্যমেও ইফতার শুরু করা হয়। দেশের সর্বত্রই রমজান মাসে ইফতারের খাবার হিসাবে পিঁয়াজু, বেগুনি, ছোলা, মুড়ি, হালিম, জিলাপি এসব জনপ্রিয়। তবে আপনি যাই খান না কেন খাবারে পুষ্টির চাহিদাটাও নজরে রাখা উচিত। আজ রোজার কিছু চট জলদি ইফতারের রেসিপি নিয়ে থাকছে শরবত ও হাল্কা খাবার। আসুন জেনে নিই চটজলদি ইফতার এর কিছু সহজ রেসিপি-

জিরা-পুদিনা শরবত

প্রয়োজনীয় উপকরণ:

দই ১ কাপ, চিনি ১ টেবিল চামচ, লবন-১/২ চা চামচ, জিরা- ১ চা চামচ, পুদিনার রস- ১ চা চামচ, পানি ও বরফ।

প্রস্তত প্রণালী:

প্রথমে শুকনো জিরা তাওয়ায় ভেজে গুঁড়া করে নিন। এবার দই, লবণ ও চিনি একসঙ্গে ব্লেন্ড করুন। দইয়ের মিশ্রণে পানি, বরফ কুচি, জিরা গুড়া এবং পুদিনা পাতা দিয়ে একসঙ্গে ব্লেন্ড করে নিন। এবার পুদিনা পাতা দিয়ে পরিবেশন করুন জিরা-পুদিনার শরবত।

শাহী ছোলা ভুনা

প্রয়োজনীয় উপকরণ:

ছোলা ২ কাপ, আলু ১ টা কিউব করে কাটা , পেঁয়াজ কুচি ১/৪ কাপ , আদা বাটা ১ চা চামচ, রসুন বাটা আধা চা চামচ, জিরা বাটা আধা চা চামচ, ধনে বাটা ১ চা চামচ, হলুদ গুঁড়া আধা চা চামচ, মরিচ গুঁড়া ১ চা চামচ, কাঁচামরিচ ৫-৬টি, লবণ পরিমাণমতো, তেল ৩ টেবিল চামচ, তেজপাতা ২টি, দারচিনি ২ টুকরা, এলাচ ২টি, আস্ত জিরা সামান্য।

প্রস্তত প্রণালী:

ছোলা ৫-৬ ঘণ্টা ভিজিয়ে রেখে সেদ্ধ করতে হবে। তেল গরম করে আস্ত জিরা দিয়ে পেঁয়াজ কুচি বাদামী করে ভাজতে হবে। এরপর আলু এবং সব বাটা ও গুঁড়া মসলা কষিয়ে ছোলা দিয়ে ভুনতে হবে। এভাবে পর্যায়ক্রমে বাকি উপকরণ দিয়ে কষিয়ে অল্প পানি দিয়ে রান্না করতে হবে। ছোলার ওপর তেল এলে চুলার আঁচ কমাতে হবে। এর পর কাঁচা মরিচ দিয়ে নামিয়ে নিতে হবে।

সবজি কাঠি কাবাব

প্রয়োজনীয় উপকরণ:

ফুলকপি ১ কাপ, বাঁধাকপি ১ কাপ, শিম আধা কাপ, বরবটি আধা কাপ, গাজর আধা কাপ, আলু সিদ্ধ করে চটকে  নেওয়া ১ কাপ, পেঁয়াজ বেরেস্তা করা আধা কাপ, ধনেপাতা ও কাঁচামরিচ কুচি ১ টেবিল চামচ (কাঁচামরিচ কুচি অল্প) গরম মসলা গুঁড়া ২ চা চামচ। ঘি ১ চা চামচ, ডিম ২টি ফেটানো, বিস্কুটের গুঁড়া পরিমাণমতো এবং ভাজার জন্য তেল। বাঁশের কাবাব কাঠি ৫-৬টি, লবণ স্বাদ অনুযায়ী। (অথবা আপনার পছন্দমতো সবজি দিতে পারেন)।

প্রস্তুত প্রণালী:

সব সবজি সামান্য লবণ ও পরিমাণমতে পানিসহ কিছুক্ষণ সিদ্ধ করে নিন। তারপর সবজির পানি ঝরিয়ে রাখুন। সব সবজি স্বাদ অনুযায়ী লবণসহ ব্লেন্ডারে ব্লেন্ড করুন। এরপর কুচি করা ধনেপাতা, কাঁচামরিচ, পেঁয়াজ বেরেস্তা, ঘি, কর্নফ্লাওয়ার, গরম মসলা গুঁড়া মাখিয়ে কিছুক্ষণ ফ্রিজে রাখুন। তারপর কাঠিতে সবজির মিশ্রণ লম্বা করে কাবাবের মতো করে মাখিয়ে নিন। কাবাব ফেটানো ডিমের মিশ্রণে মাখিয়ে এরপর বিস্কুটের গুঁড়া গড়িয়ে নিন। গরম গরম ডুবন্ত তেলে ভেজে পরিবেশন করুন সবজি কাঠি কাবাব।

চিংড়ির কাবাব

প্রয়োজনীয় উপকরণ:

চিংড়ির কিমা এক কাপ, কাঁচামরিচ কুচি ১ টেবিল চামচ, ধনেপাতা কুচি ১ টেবিল চামচ, পেঁয়াজ কুচি ২ টেবিল চামচ, সিদ্ধ আলু পরিমাণমতো, কর্নফ্লাওয়ার পরিমাণমতো, ডিম ২টি, ব্রেডক্রাম পরিমাণমতো, টমেটো সস পরিমাণমতো, লবণ স্বাদমতো।

প্রস্তত প্রণালী:

ডিম, ব্রেডক্রাম ও তেল বাদে সব উপকরণ একসঙ্গে মিশিয়ে নিতে হবে। এবার পছন্দমতো আকারে গড়ে ডিমে ডুবিয়ে ব্রেডক্রাম মেখে ডুবো তেলে বাদামি করে ভাজতে হবে।