গয়েশ্বর রায় কারাগারে, রিমান্ডে ৫৫ নেতা-কর্মী

গয়েশ্বর রায় কারাগারে, রিমান্ডে ৫৫ নেতা-কর্মী

SHARE
BNP leader Goyeshwar in jail, remand 55 leaders and activists

রাজধানীর রমনা থানায় দায়ের করা নাশকতার একটি মামলায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়কে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। একইসঙ্গে এই মামলায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য তরিকুল ইসলামের ছেলে দলের সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অনিন্দ্য ইসলাম অমিতকে তিন দিনের রিমান্ডে নেয়া হয়েছে। অপরদিকে, শাহবাগ ও রমনা থানার আলাদা মামলায় বিএনপির ৫৫ জন নেতাকর্মীর ২ থেকে ৩ দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

আজ (বুধবার) ঢাকার মহানগর হাকিম মাহমুদুল হাসান এই আদেশ দেন।

বিএনপি নেতা গয়েশ্বর চন্দ্র রায় অসুস্থ থাকায় তাকে আদালতে তোলা হয়নি। রাষ্ট্রপক্ষও তার রিমান্ড আবেদন জানায়নি। রমনা থানায় দায়ের হওয়া মামলায় তাঁকে কারাগারে পাঠানো হয়।

মঙ্গলবার আদালত থেকে ফেরার পথে হাইকোর্টের সামনে খালেদা জিয়ার গাড়ি বহরে থাকা নেতাকর্মী ও সমর্থকদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ হয়। এসময় আটক দু’জনকে প্রিজন ভ্যান থেকে নিয়ে যায় বিএনপিকর্মীরা।

নাশকতা চেষ্টা ও অন্তর্ঘাতমূলক কর্মকাণ্ডের অভিযোগে বিএনপি নেতা গয়েশ্বর চন্দ্র রায় ও রিজভী আহমেদসহ প্রায় ৮শ’ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে তিনটি মামলা করে পুলিশ। মামলায় আটক ৬৯ জনের নাম উল্লেখ ছাড়াও আরও অজ্ঞাতনামা ৭/৮শ’ জনকে আসামি করা হয়।

শাহবাগ ও রমনা থানায় দায়ের হওয়া পৃথক চার মামলার অন্য আসামিদের পক্ষে বিএনপির আইন সম্পাদক সানাউল্লাহ মিয়াসহ বিএনপিপন্থী চারজন আইনজীবী আদালতকে বলেন, পুলিশের ওপর বিএনপির নেতা-কর্মীরা হামলা চালাননি। বরং পুলিশ নিজের লোক দিয়ে হামলার ঘটনা ঘটিয়েছে। যাদের রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন করা হয়েছে, তাদের কারও বিরুদ্ধেই সুনির্দিষ্ট কোনো অভিযোগ আনতে পারেনি পুলিশ।

গতকাল মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে গুলশানের পুলিশ প্লাজার সামনে থেকে গয়েশ্বর চন্দ্র রায়কে আটক করে গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)।

LEAVE A REPLY