খুব সহজে উকুন দূর করার উপায়

খুব সহজে উকুন দূর করার উপায়

SHARE
louse-attark

উকুন একটি পরজীবী প্রাণি যা মানুষের মাথার ত্বকে বসবাস করে। এবং খুব সহজেই একজনের মাথা থেকে অন্যের মাথায় চলে আসে। উঁকুনের সমস্যায় ভুগে থাকেন অনেকেই। উঁকুনের এই সমস্যা আপনার মাথায় যেমন চুলকানির সৃষ্টি করে তেমনি সৃষ্টি করে ঘাঁ। তাই যত তাড়াতাড়ি সম্ভব এর থেকে মুক্তি চায় সবাই। আসুন জেনে নিই খুব সহজে উকুন দূর করার উপায় সম্পর্কে-

উকুন হওয়ার কারণ:

১। মাথা অপরিষ্কার থাকলে।

২। ভেজা চুল অনেকক্ষণ বাঁধা অবস্থায় থাকলে।

৩। ভেজা চুল বাধাঁর অভ্যাস থাকলে।

৪। অন্যের মাথা থেকে উকুন চলে এলে।

৫। অন্যের চিরুনি, তোয়ালে, গামছা ব্যবহার করলে।

উকুন দূর করার উপায়ঃ

উকুন সহজে মাথা থেকে যেতে না চাইলেও রয়েছে কিছু ঘরোয়া উপায় যার মাধ্যমে মাথা থেকে উকুন দূর করা সম্ভব। উপায়গুলো হল-

নারকেল তেল

উকুন দূর করার ক্ষেত্রে নারকেল তেল অনেক ভাল কাজ করে থাকে। নারকেন তেল উকুনদের শ্বাসরোধ করে দেয় ফলে উকুনরা বেশিক্ষণ থাকতে পারে না।

৩ টেবিল চামচ নারকেল তেল এবং খুব সামান্য কর্পূর মিশিয়ে নিন। তেলটি মাথায় ভাল করে ম্যাসাজ করুন। এরপর শাওয়ার কাপ দিয়ে মাথা ঢেকে দিন। পরের দিন সকালে শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন। শুঁকিয়ে গেলে চিরুনি দিয়ে আঁচড়ান। দেখবেন উকুন চলে যাচ্ছে। এটি সপ্তাহে ৩ থেকে ৫ দিন করুন। দেখবেন উকুন গায়েব হয়ে গেছে।

ভিনেগার

ভিনেগার দিয়ে খুব সহজে উকুন দূর করা সম্ভব। এতে অ্যাসিটিক এসিড আছে যা উকুন দূর করতে সাহায্য করে। ভিনেগার আর পানি মিশিয়ে নিন। তারপর সেটি মাথায় লাগান। ১০ মিনিট পর শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে দুই থেকে তিনবার ব্যবহার করুন।

নিম

নিম হল প্রাকৃতিক প্রতিষেধক যা উকুন দূর করতে অনেক বেশী কার্যকর। এটি মাথার চুলকানিও কমাতে সাহায্য করার সাথে সাথে স্কাল্প ময়েশ্চারাইজ করে থাকে। নিমের পেষ্ট করে সেটি চুল আর মাথার তালুতে লাগান। এটি সপ্তাহে দুবার করুন। নিমের তেল ব্যবহারেও চুল থেকে উকুন দূর করা সম্ভব। ভাল করে মাথার তালুতে নিমের তেল ম্যাসাজ করুন। এক ঘণ্টার পর শ্যাম্পু করে ফেলুন। এটি সপ্তাহে তিন বার করুন দেখবেন খুব দ্রুত উকুন দূর হয়ে গেছে।

লেবুর রস

লেবুর রস উকুন দূর করতে বহুল ব্যবহৃত একটি উপায়। লেবুর রস মাথায় ভাল করে লাগান। ৩ মিনিট অপেক্ষা করুন। প্রথমে ভিনেগার দিয়ে পড়ে কুসুম গরম পানি দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন। এটি সপ্তাহে একবার করুন। উকুন আপনার মাথা থেকে দূরে থাকবে।

লেবুর রসের সাথে আদার পেষ্ট মেশান। এটি মাথায় ভাল করে ম্যাসাজ করুন। একটি তোয়ালে দিয়ে মাথা পেঁচিয়ে রাখুন। এরপর শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন। এটি সপ্তাহে ২/৩ বার করুন। যদি উকুনের সমস্যা অনেক বেশি থাকে তবে এটি সপ্তাহে ৫ বার করুন।

পেঁয়াজ

পেঁয়াজের রসে বিদ্যমান সালফার উকুন দূর করে থাকে। ৪/৫ টা পেঁয়াজের রস করে নিন। এরপর তা মাথায় ভাল করে লাগিয়ে নিন। ২ ঘন্টা পর কুসুম গরম পানি দিয়ে শ্যাম্পু করে ফেলুন। চুল শুকানোর পর চিরুনি দিয়ে চুল আঁচড়ান, দেখবেন উকুন সব চিরুনিতে চলে এসেছে।