ক্ষীরের সমাহার

ক্ষীরের সমাহার

SHARE
amm-khir

ক্ষীর আমাদের সকলের কাছেই খুবই প্রিয় একটি উপাদেয়। আজ তাই থাকছে কিছু ক্ষীরের সমাহার। খুব সহজ কিছু ক্ষীর তৈরীর রেসিপি। চলুন জেনে নেওয়া যাক সেগুলো কি-

আমের ক্ষীরঃ

আসছে আমের মৌসুম। বাজারে এখনই উঠতে শুরু করেছে পাকা আম। আম দিয়ে তৈরি করা যায় নানা উপাদেয় খাবার। এবার নতুন অভিজ্ঞতা হয়ে যাক। আম দিয়েই তৈরি করে ফেলুন সুস্বাদু ক্ষীর। আসুন জেনে নিই কীভাবে-

প্রয়োজনীয় উপকরণ :

দুধ ২ কেজি, পোলাও চাল / বাসমতি চাল ১ কাপ, চিনি ১ কাপ (কম বেশি করা যাবে), এলাচ, দারুচিনি, তেজপাতা কয়েকটা, আম এর পিউরি/টিন ম্যাঙ্গো পাল্প ১ টিন, ডাবল ক্রিম ৩০০ মি.লি.।

প্রস্তুতপ্রণালি :

হাড়িতে দুধ দিয়ে সাথে পোলাও চাল/বাসমতি চাল ১ কাপ, চিনি ১ কাপ (কম বেশি করা যাবে) এলাচ দারুচিনি তেজপাতা কয়েকটা মিশিয়ে জ্বাল দিতে থাকুন। আস্তে আস্তে ঘন হতে থাকবে। খেয়াল রাখবেন যেন নিচে না লাগে। ঘন হলে নামিয়ে নিন। এবার আমের পাল্পটা ব্লেন্ডারে ব্লেন্ড করে নিয়ে ক্ষীরের সাথে মিশিয়ে নিন। (সরাসরি চুলায় আমের মিশ্রণটা দিলে দুধ ফেটে যাবার সম্ভবনা থাকে তাই ক্ষীর ঠান্ডা হবার পর আমের মিশ্রণটা মেশাবেন) সাথে ডাবল ক্রিম ৩০০ মি.লি. মিশিয়ে নিন। ক্ষীর এর উপর কিছুটা পাল্প সাজানোর জন্য দিতে পারেন। ফ্রিজে রেখে ঠান্ডা করে পরিবেশন করুন।

মুগডালের ক্ষীরঃ

ক্ষীরের নাম শুনলেই জিভে জল এসে যায় অনেকের। চলুন জেনে নিই নতুন স্বাদের এই রেসিপিটি-

প্রয়োজনীয় উপকরণ :

দেশি মুগডাল ২৫০ গ্রাম, ঘি ১০০ গ্রাম, ক্রিম আধ কৌটা, নারকেল কোরা এক কাপ, পেস্তাকুচি এক টেবিল-চামচ, জায়ফল টেলে গুঁড়া করা সিকি চামচ, জাফরান এক চা-চামচ (গোলাপ জলে ভিজিয়ে ঢেকে রাখুন), মাওয়া আড়াই টেবিল-চামচ, আখরোটকুচি দুই টেবিল-চামচ, দুধ দুই লিটার, চিনি ২০০ গ্রাম, কনডেন্সড মিল্ক এক কৌটা, কিশমিশ দুই টেবিল-চামচ, বাদামকুচি এক টেবিল-চামচ, গোলাপজল দুই চা-চামচ, কাজুবাদামকুচি দুই টেবিল-চামচ।

প্রস্তুতপ্রণালি :

মুগডাল ঝেড়ে, বেছে ও ধুয়ে পানি ঝরিয়ে নিন। ফ্রাইপ্যানে ঘি গরম করে মুগডাল ভালো করে ভেজে নিন। তারপর আধা লিটার দুধ দিয়ে আঁচ কমিয়ে নাড়তে থাকুন। ভালো করে সেদ্ধ করে পাটায় মসৃণ করে বেটে নিন। হাঁড়িতে দেড় লিটার কাঁচা দুধ গরম করে বেশ কয়েকবার ফুটিয়ে ঘন করে নিন। এতে সেদ্ধ করা বাটা মুগডাল দিয়ে ভালো করে নাড়ুন। অনবরত নাড়তে থাকুন যেন হাঁড়ির তলায় পোড়া না লাগে। কয়েকবার ফুটে উঠলে চিনি দিয়ে আবার নাড়তে থাকুন। ১০ থেকে ১৫ মিনিট পর নারকেল কোরা, অর্ধেক বাদাম ও পেস্তাকুচি দিয়ে নাড়ুন। কয়েকবার নাড়ার পর কনডেন্সড মিল্ক দিয়ে নেড়ে অর্ধেক কাজু ও কিশমিশ দিয়ে নেড়ে তাতে আখরোটকুচি, গোলাপজল ও জাফরান দিন। এক মিনিট পর ওপর থেকে জায়ফলের গুঁড়ো ছিটিয়ে দিন। ঘন হয়ে এলে ক্রিম দিয়ে নেড়ে চুলার আঁচ বন্ধ করে দিন। বাটিতে বেড়ে ওপরে বাকি মাওয়া, পেস্তা, কাজু ও কিশমিশ দিয়ে সাজিয়ে পরিবেশন করুন।

নারকেলের ক্ষীরঃ

দৈনন্দিন জীবনে নারকেলের তৈরী অনেক খাবারই তো খাওয়া হয় তবে আজ আপনাদের বলব কিভাবে খুব সহজে ক্ষীর তৈরী করা যায়-

প্রয়োজনীয় উপকরণ :

নারকেল -১ কাপ, পোলাউয়ের চাল -১ কাপ, গুড় -১ কাপ, এলাচ -২টি, দারুচিনি -২টি, দুধ -৫০ গ্রাম, কিসমিস -১০টি, পেস্তা বাদাম -৫টি কুঁচি করা।

প্রস্তুতপ্রণালী :

দুধে চাল ফুটিয়ে একে একে সব উপকরণ দিয়ে নাড়তে থাকুন। ঘন হয়ে এলে নামিয়ে বাদাম দিয়ে পরিবেশন করুন।