কাঁচা আমের যত গুণ

কাঁচা আমের যত গুণ

SHARE
Green mango

গ্রীষ্মকালের গরম সবাই যতোই অপছন্দ করুক না কেন, এই মৌসুমের ফলমূলকে অপছন্দ করার ক্ষমতা কারো নেই। গ্রীষ্মে সকলের সব চাইতে প্রিয় এবং সহজলভ্য ফল হচ্ছে আম। এখনই বাজারে উঠা শুরু করেছে কাঁচা আম। আমাদের অতি প্রিয় এই ফল আম, কাঁচা বা পাকা যেভাবেই খাওয়া হোক না কেন তা আমাদের দেহের জন্য খুবই উপকারী। এবং কিছু কিছু ক্ষেত্রে পাকা আমের তুলনায় কাঁচা আমের গুণ আরও অনেক বেশি। আসুন তবে জেনে নেয়া যাক কাঁচা আমের কিছু স্বাস্থ্যউপকারিতা সম্বন্ধে।

কাঁচা আমের গুণ

উচ্চমাত্রার ভিটামিন এ এবং সি সমৃদ্ধ ফল কাঁচা আম। ভিটামিন এ চোখের জন্য খুব উপকারী। চোখের স্নায়ু ও মাংসপেশি শক্তিশালী করতে এর ভূমিকা অপরিহার্য।

এদিকে ভিটামিন সি ছোঁয়াচে রোগের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে। দাঁত, চুল, নখ ভালো হওয়ার জন্য ভিটামিন সি জরুরি। মুখের ভেতরের চামড়া উঠে যাওয়া, মাড়িতে ঘা হওয়া, ঠোঁটের কোণায় ঘা, ঠোঁটের চামড়া ফেটে যাওয়া- এসব অসুখ ভালো হওয়ার জন্য দরকার ভিটামিন এ ও সি যা রয়েছে কাঁচা আমে।

এই ফলে রয়েছে ভিটামিন বি সিক্স বা পাইরিডক্সিন। পাইরিডক্সিন মানুষের মস্তিষ্কে গাবা নামের এক ধরনের হরমোন তৈরি করে, যা প্রতিরোধ করে স্ট্রোক ও মস্তিষ্কের অন্যান্য জটিল রোগ। এতে রয়েছে কপার নামের গুরুত্বপূর্ণ উপাদান, যা দেহে রক্ত বাড়াতে সাহায্য করে।

এছাড়া প্রি-বায়োটিক ডায়াটারি ফাইবার নামের জরুরি উপাদান রয়েছে কাঁচা আমে, যা পাকস্থলি, কোলন ক্যান্সার প্রতিরোধ করে।

আমাদের দেহে রক্তের মধ্যে টক্সিন নামের কিছু উপাদান রয়েছে, যা দেহে রোগ তৈরি করে। কাঁচা আম এই টক্সিনকে ধ্বংস করে। গর্ভবতী মায়েরা কাঁচা আম খেলে বাচ্চার মেধা ভালো হয়, জন্মের পর বাচ্চার সংক্রামক রোগ তুলনামূলকভাবে কম হয়। চর্বি কমাতে, ওজন হ্রাস করতে সাহায্য করে কাঁচা আম। যে কোনো কাটা-ছেঁড়া বা অপারেশনের পরে এই ফল কাটা স্থান দ্রুত শুকাতে সাহায্য করবে।

এই ফলে রয়েছে উচ্চমাত্রার পটাশিয়াম যা হৃৎপিণ্ডের স্পন্দন এবং রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে। তাই উচ্চ রক্তচাপের রোগীদের জন্য কাঁচা আম সুফল বয়ে আনে।

ডায়াবেটিস রোগীরা এই ফল খেতে পারবেন, কারণ কাঁচা আমে চর্বি বা কোলেস্টেরল নেই, তাই এই ফল খেলে ওজন বা ডায়াবেটিস বেড়ে যাওয়ার কোনো আশঙ্কা নেই।

কাঁচা আমে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে আয়রন। আয়রনের অভাবে আমরা অনেকেই রক্ত স্বল্পতা রোগে ভুগে থাকি। কাঁচা আমের আয়রন আমাদের দেহের আয়রনের অভাব পুরনে কাজ করে। ফলে রক্ত স্বল্পতা দূর হয়।

হৃদরোগীদের জন্য এটি একটি উপযুক্ত ফল। কাঁচা আমে ভিটামিন সি পাকা আমের তুলনায় অনেক বেশি থাকে। তাই পুষ্টির বিচারে কাঁচা আম হোক আপনার পরিবারের সদস্য।