এক পর্দায় আসছেন প্রভাস-সালমান

এক পর্দায় আসছেন প্রভাস-সালমান

SHARE
Provas-Salman

বাহুবলী ২-এর আকাশ ছোঁয়া সফলতার পর সবাই এখন তেলেগু তারকা প্রভাসকে দেখতে চান বলিউডের চলচ্চিত্রে। কিছুদিন আগে গুজব রটেছিল, করণ জোহর নাকি তাকে বলিউডে নিয়ে আসবেন। কিন্তু প্রভাস এ বিষয়ে নিশ্চিত করে কিছু বলছেন না। তবে এবার শোনা গেল এক পর্দায় আসছেন প্রভাস-সালমান

তবে সম্প্রতি আবার খবর ছড়িয়েছে, রোহিত শেটির পরিচালনায় একটি চলচ্চিত্র দিয়ে বলিউডে পা রাখবেন প্রভাস। শুধু তাই নয়, সে চলচ্চিত্রে প্রভাসের সঙ্গে দেখা যাবে সালমান খানকেও।

প্রভাস এখন ব্যস্ত রয়েছেন তার পরবর্তী সিনেমা ‘সাহো’ নিয়ে। বাহুবলির মতো এখানের প্রভাসের বিপরীতে রয়েছেন আনুশকা শেটি।

উল্লেখ্য, তেলুগু সিনেমায় একচেটিয়াভাবে অভিনয় করা একজন ভারতীয় চলচ্চিত্র অভিনেতা প্রভাস। তিনি মূলত তামিল এবং তেলুগু ভাষার ছবিগুলোতে অভিনয় করেন। তিনি তেলুগু অভিনেতা উপ্পালাতি কৃষ্নাম রাজুর ভাগ্নে। তিনি ২০০২ সালে এশওয়ার ছবি দিয়ে চলচ্চিত্র জগতে আত্মপ্রকাশ করেন। এরপর তিনি আরো বেশকিছু ছবি যেমন ভরসাম (২০০৪), ছত্রপতি (২০০৫), চক্রাম (২০০৫), মুন্না (২০০৭), বিল্লা (২০০৯), মিঃ পারফেক্ট (২০১১) ও মির্চি (২০১৩) তে অভিনয় করেন। ২০১৪ সালে তিনি প্রভু দেবা পরিচালিত বলিউডের একটি ছবি অ্যাকশন জ্যাকসন এ একটি আইটেম গানে অভিনয়ের মাধ্যমে হিন্দি ছবিতে হাজির হন। তাঁর অভিনিত বাহুবলী: দ্য বিগিনিং ছবিটি ছিল গ্লোবাল ভারতীয় চলচ্চিত্রের সর্বকালের সর্বোচ্চ ও ভারতের সর্বোচ্চ ব্যবসা সফল ছবি।

অন্যদিকে, সালমান খান একজন জনপ্রিয় ভারতীয় চলচ্চিত্র অভিনেতা। তিনি ইতোমধ্যেই ৮০টির বেশি হিন্দি ভাষার চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন। তিনি বলিউডে আত্মপ্রকাশ করেন বিবি হো তো এহসি চলচ্চিত্রে একটি গৌণ ভূমিকায় অভিনয়ের মধ্যে দিয়ে ১৯৮৮-তে। তাঁর অভিনীত প্রথম ব্যবসা সফল চলচ্চিত্র ম্যায়নে পিয়ার কিয়া ১৯৮৯ সালে মুক্তি পায়; এজন্যে তিনি ফিল্মফেয়ার পুরস্কার অনুষ্ঠানে শ্রেষ্ঠ নবাগতার পুরস্কার লাভ করেন। এরপর নব্বইয়ের দশকে তিনি বলিউডে বেশ কিছু ব্যবসা সফল হিন্দি চলচ্চিত্র উপহার দেন, যেমন সাজান (১৯৯১), হাম আপকে হ্যায় কউন..! (১৯৯৪), করণ অর্জুন (১৯৯৫), জুড়ুয়া (১৯৯৭), পিয়ার কিয়া তো ডারনা কিয়া (১৯৯৮) বিবি না. ১৯৯৯