উবারের বিরুদ্ধে তদন্তের ঘোষণা

উবারের বিরুদ্ধে তদন্তের ঘোষণা

SHARE
The announcement of the investigation against Uber

উবারের বিরুদ্ধে তদন্তের ঘোষণা দিয়েছে ব্রিটেন, যুক্তরাষ্ট্র, অস্ট্রেলিয়া, ফিলিপাইনসহ আরও বেশ কিছু দেশের সরকার।

গত বছর উবার ব্যবহারকারীদের ৫ কোটি ৭০ লাখ অ্যাকাউন্টের তথ্য হাতিয়ে নিয়েছে হ্যাকাররা। এর মধ্যে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের উবার ব্যবহারকারীর নাম, মোবাইল ফোন নম্বর, ই–মেইল ঠিকানা রয়েছে। হ্যাকারদের হাতে যাওয়া গুরুত্বপূর্ণ তথ্য ফাঁস হওয়ার ঘটনা ঠেকাতে এক লাখ মার্কিন ডলার অর্থ পরিশোধ করছে অ্যাপভিত্তিক গাড়ি সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানটি। গতকাল মঙ্গলবার উবার কর্তৃপক্ষ এ তথ্য জানিয়েছে।

১ লাখ ডলারের বিনিময়ে তথ্যগুলো মুছে ফেলা হয়। উবার তখন বিষয়টি তাদের অ্যাপ ব্যবহারকারীদের জানায়নি।

গ্রাহকদের ব্যক্তিগত তথ্যের গোপনীয়তা সুরক্ষিত করার ব্যাপারে ব্রিটেন ও যুক্তরাষ্ট্র দুই দেশেই কড়া আইন রয়েছে। আবার উবার ব্যবহারকারীর সংখ্যা এ দুই দেশেই সবচেয়ে বেশি। পরশু উবারের পক্ষ থেকে বিষয়টি স্বীকার করে নেওয়ার পর এখন বিশ্বের অনেক দেশ নড়েচড়ে বসেছে। উবার কী কী আইনের লঙ্ঘন করল, তা এখন খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্রের বেশ কয়েকজন আইন প্রণেতা বিষয়টি নিয়ে কংগ্রেসে শুনানির আয়োজন করার আহ্বান জানিয়েছেন। ফেডারেল ট্রেড কমিশনকেও তাঁরা এ ব্যাপারে উদ্যোগী হতে অনুরোধ করেছেন। আর যুক্তরাজ্যে গ্রাহকদের গোপন তথ্য সুরক্ষিত করতে ব্যর্থ হলে ৫ লাখ পাউন্ড পর্যন্ত জরিমানার বিধান রয়েছে।

এর আগে গোপনে একটি সফটওয়্যার প্রোগ্রাম চালানোর অভিযোগে মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআইয়ের জেরার মুখে পড়তে হয়েছিল প্রতিষ্ঠানটিকে।

এক ব্লগ পোস্টে উবারের প্রধান নির্বাহী দারা খোশরোশাহি বলেন, ‘হ্যাক হওয়ার ঘটনা জানার পর এর জন্য দায়ী দুজন কর্মীকে বরখাস্ত করা হয়েছে। এটা হওয়ার কোনো কারণ ছিল না। এ জন্য ক্ষমা চাইব না।’

কয়েক মাস ধরেই উবার বেশ সংকটের ভেতর দিয়ে যাচ্ছে। যৌন নির্যাতন, তথ্যের গোপনীয়তা, এশিয়ায় তাদের ব্যবসা করার ধরন—এসব নিয়ে সংকট চরমে পৌঁছালে গত জুনে প্রধান নির্বাহী পদে পরিবর্তন আনতে হয়। এসব ঝামেলার কারণে লন্ডন এরই মধ্যে উবারে লাইসেন্স বাতিল করেছে। এবার যুক্তরাষ্ট্রের কয়েকটি রাজ্যও উবারের বিরুদ্ধে তদন্তের ঘোষণা দিল।

আগস্টে নতুন নির্বাহী দায়িত্ব নিয়েছেন। উবারের জঞ্জাল পরিষ্কারের ঘোষণা দিয়েছেন তিনি। জাপানের সফটব্যাংক গ্রুপ ১ কোটি ডলার বিনিয়োগ করতে পারে বলে এ মাসে ঘোষণা দিয়েছিল উবার। যদিও ব্যাংকটি বলছে, উবারের শেয়ারধারীরা সঠিক দামে শেয়ার না ছাড়লে তারা তা কিনবে না।