ঈদে আসছে ‘বাহুবলী’, ‘রইস’, ‘সুলতান’

ঈদে আসছে ‘বাহুবলী’, ‘রইস’, ‘সুলতান’

SHARE
Panjabi for boys

ঈদে ছেলেদের পোশাকের বাজার দখল করতে আসছে ভারতীয় সিনেমার নামে জমকালো সব পাঞ্জাবি। তারই ধারাবাহিকতায় এবার ঈদে আসছে ‘বাহুবলী’, ‘রইস’, ‘সুলতান’

এলিফ্যান্ট রোড, সায়েন্স ল্যাবরেটরি মোড় এবং গাউছিয়া মার্কেটের পাঞ্জাবির দোকানগুলো ঘুরে দেখা যায়, বাহারি নামের এসব পাঞ্জাবি ঘিরে ক্রেতাদের আগ্রহ বেশি। সায়েন্স ল্যাবরেটরি মোড়ের এম ক্রাফটে ঈদের পোশাকের বিশেষ সংগ্রহের মধ্যে আছে ‘পিকে’, ‘সুলতান’ ও ‘বাহুবলী’ সেট। বিক্রেতারা দাম হাঁকছেন যথাক্রমে ৬ হাজার ৫০০, ৪ হাজার ৫০০ ও ৫ হাজার ৫০০ টাকা।

নাম ও দাম আলাদা হলেও পাঞ্জাবি-চুড়িদারের সেটগুলো দেখতে প্রায় একই রকম। তার ওপর বাহুবলী বা পিকে চলচ্চিত্রে প্রধান চরিত্রগুলো পাঞ্জাবি পরেনি। তাহলে এমন নাম কেন? এমন প্রশ্নের জবাবে এম ক্রাফটের বিক্রেতা মো. আরিফ বলেন, পাঞ্জাবিগুলো ভারত থেকে আসা। সেখানেই নামগুলো রাখা হয়।

তবে পাশের দোকান ইভা গার্মেন্টসের মো. আরমান বলেন, ‘বাজার ঘুরলে এক শ একটা নাম পাবেন। কিন্তু সবই বানানো। কাস্টমার ধরার জন্য রাখে।’

বাজার ঘুরে দেখা যায় দোকানগুলোতে জুট কটন, কাতান, জয়শ্রী সিল্ক কাপড়ের জমকালো পাঞ্জাবির সংগ্রহ বেশি। দাম ১ হাজার ৫০০ থেকে ৩ হাজার ৫০০ টাকা পর্যন্ত। বিক্রেতারা জানান সুতির পাঞ্জাবি আর কাবলি সেটও ভালো চলছে।

দেশীয় ব্র্যান্ডের শোরুমগুলোতেও ঈদের বিশেষ পোশাক আসা শুরু হয়ে গেছে রোজার প্রথম দিন থেকে। ছেলেদের পোশাক ব্যান্ড দর্জিবাড়িতে ‘স্লিম ফিট’ সুতির পাঞ্জাবি পাওয়া যাচ্ছে। দাম ২ হাজার ৯০ থেকে ২ হাজার ৩৯০ টাকা।

সুতি কাপড়ের এক রঙা এবং প্রিন্টের শার্টের দাম ১ হাজার ৬৫০ থেকে ২ হাজার ৮০০ টাকা। ফ্যাশন হাউজ ওয়েস্টেকসে সুতির পাঞ্জাবি পাওয়া যাচ্ছে ২ হাজার টাকার মধ্যে। নতুন আসা গ্যাবার্ডিন প্যান্টের দাম ১ হাজার ৭০০ টাকা থেকে শুরু।

তবে মেয়েদের তুলনায় ছেলেদের পোশাকে বৈচিত্র্য ও নতুনত্ব তেমন চোখে পড়ে না। ফ্যাশন হাউস ‘সাদাকালো’র দেশি দশ আউটলেটের ব্যবস্থাপক মো. সাখাওয়াত হোসেন বলেন, ঈদ উপলক্ষে এ পর্যন্ত ১০টি নতুন নকশার শাড়ি, ৮টি নকশার সালোয়ার-কামিজ এসেছে। তবে পাঞ্জাবি এসেছে ১০টি। বললেন, ছেলেদের পোশাকের মধ্যে তাঁরা শুধু পাঞ্জাবি তৈরি করেন। তাই ছেলেদের নতুন নকশার পোশাক মেয়েদের তুলনায় কম।

রঙ বাংলাদেশের প্রধান নির্বাহী সৌমিক দাশ ব্যাপারটি ব্যাখ্যা করলেন এভাবে, ‘মেয়েদের পোশাক নিয়ে যতটা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার সুযোগ থাকে, ছেলেদের ক্ষেত্রে অতটা হয় না। খুব বেশি নতুন কিছু তারা নিজেরাও ক্যারি করতে চায় না।’

এবারের ঈদের ট্রেন্ড সম্পর্কে সৌমিক বললেন, এবার পাঞ্জাবির দৈর্ঘ্য বেড়েছে। গরমের কথা মাথায় রেখে সুতি ও আরামদায়ক কাপড়ে পাঞ্জাবি-শার্ট তৈরি হচ্ছে।