ঈদের ছবি নিয়ে হতাশ হল মালিকরা

ঈদের ছবি নিয়ে হতাশ হল মালিকরা

SHARE
Eid movies-unsucessfull

এবারের ঈদের তিন ছবি নিয়ে হতাশ হল মালিকরা। মুক্তির প্রথম পাঁচদিনে ছবিগুলো দর্শক টানতে ব্যর্থ হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন হল মালিকরা। ফলে ব্যবসাতে মোটামুটি লোকসান গুনতে হয়েছে তাদের। ফলে এবার ঈদের ছবি নিয়ে হতাশ হল মালিকরা

গত ঈদ-উল-ফিতরে যৌথ প্রযোজনার দুটি ও দেশীয় প্রযোজনার একটি ছবি মুক্তি পায় দেশের সিনেমা হলগুলোতে। যৌথপ্রযোজনার ‘নবাব’ ও ‘বস টু’র দাপটে হল দখলে  ‘রাজনীতি’ চলচ্চিত্রটি হেরে গেলেও পরবর্তীতে দর্শক আগ্রহের প্রেক্ষিতে ঈদের পরও বেশ কয়েক সপ্তাহ নতুন নতুন হলে প্রদর্শিত হয় ছবিটি। তিনটি ছবিতেই আশাতীত সাফল্য পান প্রযোজক ও হল মালিকরা।

সম্প্রতি তথ্যমন্ত্রণালয়ের দেওয়া আদেশ অনুযায়ী যৌথ প্রয়োজনার নীতিমালা তৈরি হওয়ার আগ পর্যন্ত বড়পর্দায় মুক্তি পাবে না যৌথপ্রযোজনার ছবি। তাই ঈদ উল আযহায় ছিলো দেশীয় প্রযোজনার তিন ছবির লড়াই।

২ সেপ্টেম্বর সারাদেশে একযোগে মুক্তি পায় মান্নান গাজীপুরী পরিচালিত ‘রংবাজ’, সাহাদত হোসেন লিটন পরিচালিত ‘অহংকার’ ও জাহাঙ্গীর আলম সুমনের ‘সোনাবন্ধু’। সারাদেশের ৩১৬টি হলে মুক্তিপ্রাপ্ত চলচ্চিত্রগুলো দর্শক টানতে ব্যর্থ হয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রদর্শক সমিতির সভাপতি ইফতেখার উদ্দিন নওশাদ।

তিনি বলেন, “জানি না কেন এমন হলো। ছবিগুলো দর্শক টানতে পারছে না। কোনো শো’ই এখনও পর্যন্ত হাউজফুল যায়নি। শুধু মাত্র ইভিনিং শো’তে কিছু দর্শক আসছে। বাকি শো গুলোতে খুবই কম সংখ্যক দর্শক উপস্থিতি হতাশ করছে আমাদের।”

ঈদ উপলক্ষে ব্যবসায়িক সাফল্যের নিশ্চয়তায় শাকিব খানের ছবিই প্রদর্শনে বেশি আগ্রহী থাকেন হল মালিকরা। কিন্তু এ বছর শাকিব অভিনীত রংবাজ ১৬৩টি হলে ও ১১৮টি হলে ‘অহংকার’ মুক্তি পেলেও দর্শক ক্ষরায় ভুগছেন হল মালিকরা।

“শাকিব খানের ছবি তো মুক্তি পেলো, তবু দর্শক হলে যাচ্ছেন না। আমার মনে হয়, দর্শক এখন চাকচিক্য চায়। ‘অহংকার’ ছবির গল্পটা পারিবারিক কিন্তু ‘রংবাজ’ ছবির গল্পটা সে তুলনায় খুব একটা ভালো নয়। তবু, ‘অহংকার’-এর চেয়ে ‘রংবাজ’ ভালো চলছে। কারণ এ ছবির শুটিং বাইরে হয়েছে। তো, ছবির সফলতার জন্য একটু দেশের বাইরে নতুন লোকেশন লাগেই আজকাল।”-বললেন নওশাদ।

তিনি আরো জানান, ‘অহংকার’ ছবির দর্শকদের মধ্যে নারী দর্শকের আধিক্য চোখে পড়ছে। অন্যদিকে ‘রংবাজ’ চলচ্চিত্রের প্রতি আগ্রহী হচ্ছেন তরুণ ছেলে-মেয়েরা।

এদিকে, শাকিব-বুবলি জুটির বাইরে এবার চিত্রনায়িকা পপি ও পরীমনি অভিনীত লোকগল্পের ছবি ‘সোনাবন্ধু’র প্রতিও দর্শক সুবিচার করেননি।

গল্প ভালো হলেও চলচ্চিত্রটির প্রতি দর্শকের আগ্রহ নেই বলে জানিয়েছেন নওশাদ। এছাড়াও জানা গেছে, ৩৫টি হলে মুক্তিপ্রাপ্ত চলচ্চিত্রটি এখনও কোনো হল থেকে নামেনি। হলমালিকরা কিছু শো বন্ধ রাখছেন দর্শক না থাকায়।

তবে, হলে দর্শক না এলেও পরের সপ্তায়ও ছবিগুলো প্রদর্শনের সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছে প্রদর্শক সমিতি।

এ ব্যাপারে নওশাদ বলেন, “কিছুই করার নেই। নতুন কোনো ছবি নেই হাতে। আমরাতো অর্থলগ্নি করে ছবিগুলো হলে এনেছি। টাকাটাতো উঠতে হবে। ঈদের পর মানুষ শহরে ফিরছে। আশা করি দ্বিতীয় সপ্তায় সব হলেই নতুন কিছু দর্শক যুক্ত হবেন। তাই, দ্বিতীয় সপ্তাহেও চলচ্চিত্রগুলো হলে প্রদর্শনের সিদ্ধান্ত নিয়েছি আমরা।”

LEAVE A REPLY