আখরোট খাবেন যে কারণে

আখরোট খাবেন যে কারণে

SHARE
Akroot-health

আখরোট বাদাম শক্তিতে ভরপুর এবং পুষ্টি, খনিজ, এন্টিওক্সিডান্ট এবং ভিটামিন সমৃদ্ধ যা কিনা সুস্বাস্থ্যের জন্য আবশ্যিক। উচ্চমাত্রার ক্যালোরি ও চর্বি সমৃদ্ধ বলে আখরোটকে এড়িয়ে যান অনেকেই। যদিও আখরোট প্রচুর পুষ্টি সমৃদ্ধ এবং বিপাক থেকে শুরু করে হৃদস্বাস্থ্যের জন্য ও উপকারী। আখরোটের সৌন্দর্য উপকারিতাকে উপেক্ষা করার উপায় নেই। আখরোটে উচ্চমাত্রার অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকে। আসুন জেনে নিই আখরোট খাবেন যে কারণে-

প্রতি ১০০ গ্রাম আখরোটে ২০ মিলিমোল অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকে। আখরোট ফ্রি র্যা ডিকেলকে ধ্বংস করতে পারে বলে হৃদরোগ হতে বাঁধা দেয়।

আখরোটে ওমেগা ৩ ফ্যাটি এসিড থাকে যা খারাপ কোলেস্টেরল কমাতে এবং ভালো কোলেস্টেরল বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে। এ কারণেই আখরোট হৃদপিন্ডের স্বাস্থ্য ভালো রাখার জন্য একটি চমৎকার স্ন্যাক্স।

বিনিয়মিত আখরোট খেলে ওজন বৃদ্ধি পায় না। ১ আউন্স আখরোটে রয়েছে ২.৫ গ্রাম ওমেগা ৩ ফ্যাট, ৪ গ্রাম প্রোটিন এবং ২ গ্রাম ফাইবার থাকে যা তৃপ্তি দিতে সাহায্য করে। যে কোন ওজন নিয়ন্ত্রণের পরিকল্পনায় তৃপ্তি অনেক বড় একটি বিষয়। তাই আপনি যদি ওজন নিয়ন্ত্রণের প্রক্রিয়ার মধ্যে থাকেন তাহলে আখরোট নিঃসন্দেহে সঠিক একটি খাদ্য।

আখরোটে বেশ কয়েকটি নিউরোপ্রোটেকটিভ যৌগ যেমন- ভিটামিন ই, ফোলেট, মেলাটোনিন, ওমেগা ৩ ফ্যাট এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকে। আখরোট খাওয়া মস্তিস্কের স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী।

আখরোটের মতো উচ্চমাত্রার অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট খাদ্য সাধারণত বয়স্ক ব্যক্তিদের অক্সিডেটিভ স্ট্রেসের কারণে সৃষ্ট দুর্বলতা কমাতে সাহায্য করে। মোটর ফাংশন এবং জ্ঞানের বৃদ্ধিতে সাহায্য করে।

আখরোটে মেলাটোনিন নামক যৌগ থাকে। মেলাটোনিন শরীরে সংশ্লেষিত হয়। আখরোট খেলে শরীরে মেলাটোনিনের মাত্রা বৃদ্ধি পায় বলে ঘুম ভালো হয়। এ কারণেই ঘুমের উন্নতিতে সাহায্য করে আখরোট।

আখরোট চুলের জন্য উপকারী। কারণ এতে বায়োটিন (ভিটামিন বি ৭) থাকে যা চুলকে শক্তিশালী হতে সাহায্য করে, চুল পড়া কমে এবং চুলের বৃদ্ধিতে সাহায্য করে।

আখরোট অগ্ন্যাশয় ক্যান্সার প্রতিরোধ করে, দীর্ঘদিন বাঁচতে সাহায্য করে, গর্ভবতী নারীদের জন্য উপকারী, স্তন ক্যান্সারের ঝুঁকি কমায় এবং স্ট্রেসের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করতে সাহায্য করে।