অস্ট্রেলিয়াকে ২৬৫ রানের চ্যালেঞ্জ দিল বাংলাদেশ

অস্ট্রেলিয়াকে ২৬৫ রানের চ্যালেঞ্জ দিল বাংলাদেশ

SHARE
Bangladesh give 265 run challenge to Australia

ঢাকা টেস্টের তৃতীয় দিনে অস্ট্রেলিয়াকে ২৬৫ রানের চ্যালেঞ্জ দিল বাংলাদেশ। আজ অস্ট্রেলিয়াকে বড় লক্ষ্য ছুড়ে দেয়ার সুযোগ ছিল বাংলাদেশের সামনে। কিন্তু সেই সুযোগ হাতছাড়া করেছে মুশফিকুর রহীমের দল। শূন্য রানে ৩ উইকেট হারিয়ে হঠাৎ বিপাকে পরে বাংলাদেশ। ১৮৬/৫ থেকে মুহূর্তেই ৩ উইকেট হারিয়ে ১৮৬/৮ হয়ে যায় বাংলাদেশ। তাতেই ম্যাচে ফিরে এল অস্ট্রেলিয়া। তবে মেহেদী হাসান মিরাজ চা-বিরতির আগে দলকে আর কোনো ধাক্কা খেতে দেননি। শফিউলকে নিয়ে বাকি সময়টা কাটিয়ে দিয়েছেন, দলকে এনে দিয়েছেন মহাগুরুত্বপূর্ণ আরও ২৮টি রান। ৭ রানের ব্যবধানে দুজনই আউট হওয়ায় ২২১ রানে থেমেছে বাংলাদেশ।

দ্বিতীয় ইনিংসে বাংলাদেশের হয়ে সর্বোচ্চ ৭৮ রানের ইনিংস খেলেন তামিম ইকবাল। এছাড়া মুশফিক ৪১, মেহেদী হাসান মিরাজ ২৬ এবং সাব্বির রহমান করেন ২২ রান।

অস্ট্রেলিয়ার সফলতম বোলার নাথান লায়ন। ৮২ রানে ৬ উইকেট নেন তিনি। এছাড়া অ্যাস্টন অ্যাগার দুটি ও প্যাট কামিন্স নেন একটি উইকেট।

মঙ্গলবার ১ উইকেটে ৪৫ রান নিয়ে ব্যাটিংয়ে নামা বাংলাদেশ দিনের এক ঘণ্টা না পেরুতেই তাইজুল-ইমরুলকে হারিয়ে সেই চাপে পড়ে। সকালে সাবধানী শুরুর পর দলীয় ৬১ রানের মাথায় নাথান লায়নের বলে তাইজুল লেগ বিফোরের ফাঁদে পড়লে হোঁচট খায় বাংলাদেশ। কিছুক্ষণ পর দলীয় ৬৭ রানের মাথায় ডেভিড ওয়ার্নারকে ক্যাচ দিয়ে তাইজুলকে অনুসরণ করেন ইমরুল।

পরে মুশফিকুর রহিমকে নিয়ে সেই চাপ কাটিয়ে উঠেন তামিম। তারা ধীরে ধীরে দলকে এগিয়ে নিতে থাকেন। বেশ ছন্দময় ক্রিকেট খেলতে থাকেন এ জুটি। তাদের ওপর ভরসা রেখে বড় লিডের স্বপ্নও দেখতে শুরু করে টাইগাররা।

তবে সেই পথে বাধা হয়ে দাঁড়ান প্রতিপক্ষের পেসার প্যাট কামিন্স। তার হঠাৎ লাফিয়ে ওঠা বল না বুঝে ওঠার আগেই তামিমের ব্যাট ছুয়ে চলে যায় ম্যাথু ওয়েডের হাতে। এতে মাঠ ছেড়ে চলে যাওয়ার লাল সংকেত পান বাঁহাতি ওপেনার। ফেরার আগে ক্যারিয়ারের ২৪তম ফিফটি তুলে নেন ড্যাশিং ওপেনার। শেষ পর্যন্ত ১৫৫ বলে ৮ চারে ৭৮ রানের লড়াকু ইনিংস খেলেন তিনি।

তামিম ফিরে গেলে ক্রিজে আসেন প্রথম ইনিংসে সর্বোচ্চ ৮৪ রান করা সাকিব আল হাসান। তবে দ্বিতীয় ইনিংসে আস্থার প্রতিদান দিতে পারেননি তিনি। লায়নকে উড়িয়ে মারতে গিয়ে উইকেট বিলিয়ে দিয়ে এসেছেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার (৫)। এতে ফের চাপে পড়ে বাংলাদেশ।

Bangladesh give 265 run challenge to Australia

তামিম-সাকিব আউট হওয়ার পর লিডটাকে বাড়ানোর পুরো দায়িত্বটাই নিয়েছিলেন অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম। দারুণ ছন্দে মনে হচ্ছিল দলনেতাকে। তবে ভাগ্যটা সহায় হয়নি তাঁর। রানআউট হয়ে ফিরেন বাংলাদেশ অধিনায়ক। ৪১ রান করেন মুশফিক।

মুশফিক আউট হওয়ার পরের ওভারেই ফিরে আসেন নাসির হোসেন। অ্যাগারের বলে উইকেটের বলে ক্যাচ দেন তিনি। নাসির ফেরার পর ব্যাটিং করতে এসেছেন মেহেদী হাসান মিরাজ। বেশিক্ষণ টেকেননি সাব্বির রহমানও। নাথান লায়নের বলে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান সাব্বির। এরপর মেহেদী হাসান মিরাজের ২৬ রানের ছোট ক্যামিও ইনিংসে স্কোরটা দুইশ পার হয় বাংলাদেশের। শেষ পর্যন্ত ২২১ রানে শেষ হয় লাল-সবুজের ইনিংস।

LEAVE A REPLY