অলিভ অয়েলে হোক চুলের যত্ন

অলিভ অয়েলে হোক চুলের যত্ন

SHARE
Hair care with olive oil

সেই প্রচীনকাল থেকেই রূপচর্চায় ব্যবহৃত হয়ে আসছে অলিভ অয়েল। ত্বকের যত্নের পাশাপাশি চুলের যত্নেও সমান ভূমিকা রাখে এই তেলটি। বলা হয়ে থাকে, শুষ্ক তালু প্রাণ ফিরে পায় অলিভ অয়েলের গুণে। চুলের আগা ফাঁটা এবং উসকোখুসকো চুলের অন্যতম সমাধান জলপাইয়ের তেল। এই তেল চুলের রুক্ষতা দূর করে সুস্থ করে তোলে। আজ জানবো চুলের যত্নে সেই অলিভ অয়েলের কিছু ব্যবহার সম্পর্কে। এখন থেকে তবে অলিভ অয়েলে হোক চুলের যত্ন –

শ্যাম্পু করার পর হাতের তালুতে কয়েক ফোঁটা অলিভ অয়েল নিয়ে ভালো করে দুই হাতে ঘষে ফেলুন। তারপর চুলে কন্ডিশনারের বদলে লাগিয়ে ফেলুন।

মাথায় অলিভ অয়েল ম্যাসাজ করে গরম পানিতে ডোবানো তোয়ালে দিয়ে মাথা পেঁচিয়ে নিতে হবে। খেয়াল রাখবেন তাপমাত্রা যেন সহ্য ক্ষমতার মধ্যে থাকে। চুল হবে সুন্দর।

সপ্তাহে অন্ততপক্ষে একবার হালকা গরম অলিভ অয়েল চুলে ভালো করে ম্যাসাজ করে লাগান। এভাবে ২/৩ ঘণ্টা চুলে তেল লাগিয়ে রেখে শ্যাম্পু করুন। চুল হবে উজ্জ্বল ও সুন্দর।

সমপরিমাণ জলপাই তেল আর বাদামের তেল একসাথে মিশিয়ে চুলের গোড়ায় ঘষে ঘষে লাগিয়ে ১ ঘণ্টা অপেক্ষা করে শ্যাম্পু করে ফেলুন। এভাবে ৩ সপ্তাহ করলে খুশকি অনেকটা কমে আসবে।

একটি ডিমের কুসুমের সাথে ২ টেবিল চামচ অলিভ অয়েল, ৫ ফোঁটা লেবুর রস মেশান। চুলে ১৫ মিনিট লাগিয়ে রাখুন তারপর ধুয়ে ফেলুন। আপনার চুল হয়ে উঠবে নরম আর উজ্জ্বল।

খানিকটা মধু ও চার টেবিল-চামচ অলিভ অয়েল ভালোভাবে মিশিয়ে নিন। এই মিশ্রণ চুলে মাখিয়ে ৩০ মিনিট অপেক্ষা করুন। তারপর শ্যাম্পু করে ভালোভাবে কন্ডিশনার লাগিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে।

অলিভ অয়েল মাথায় লাগানোর আগে কখনও গরম করা উচিত না, এই বিষয়টি খেয়াল রাখা অত্যন্ত জরুরি।